প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] শেষ ম্যাচ জিতে সম্মান বাঁচালো ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক: [২] অস্ট্রেলিয়ায় ওয়ানডেতে টানা দুটি হারের পর সম্মান রক্ষা হলো ভারতের। তিন ম্যাচের সিরিজ তারা শেষ করেছে ১৩ রানে জিতে। ২-১ এ পিছিয়ে থেকে সিরিজ শেষ করলো সফরকারীরা।

[৩] ক্যানবেরার মানুকা ওভালে বুধবার বিরাট কোহলির ইতিহাস গড়ার ম্যাচে ভারত ৫ উইকেটে ৩০২ রান করে। তিন ম্যাচেই তাদের দলীয় স্কোর তিনশ ছাড়ায়।

[৪] তবে আগের দুই ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে দলীয় স্কোরের রেকর্ড গড়া অস্ট্রেলিয়া শেষ ওয়ানডেতে অলআউট ২৮৯ রানে! শেষ ওভারের তৃতীয় বলে অ্যাডাম জাম্পাকে এলবিডাব্লিউ করে স্বস্তির জয় পায় সফরকারীরা।

[৫] আগামী শনিবার ৫ ডিসেম্বর এই শহরেই প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলবে অস্ট্রেলিয়া ও ভারত। এরপর সিডনিতে ফিরে যাবে দুই দল, সেখানে ৬ ও ৮ ডিসেম্বর হবে শেষ দুটি ম্যাচ।

[৬] আগে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরুর পর হঠাৎ অস্ট্রেলিয়ান স্পিনারদের ঘূর্ণিতে পথ হারাতে থাকে ভারত। হাল ধরেছিলেন কোহলি। ৭৮ বলে ৬৩ রানের ইনিংস খেলার পথে ওয়ানডেতে দ্রুততম ১২ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন অধিনায়ক।

[৭] জশ হ্যাজেলউডের শর্ট বলে টানা তৃতীয়বার মাঠ ছাড়েন কোহলি। তিনি যখন ফিরে যান, ভারতের স্কোরবোর্ডের চেহারা তখন ৩২ ওভারে ৫ উইকেটে ১৫২ রান। ওই স্কোর প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যায় হার্দিক পান্ডিয়া ও রবীন্দ্র জাদেজার ব্যাটে।

[৮] পান্ডিয়া তো তার প্রথম সেঞ্চুরির একেবারে কাছে ছিলেন। কিন্তু শেষ ওভারগুলোতে স্ট্রাইক পাচ্ছিলেন না তিনি। কারণ জাদেজা তুলেছিলেন তীব্র ঝড়। অনভিজ্ঞ পেসার শন অ্যাবটকে পেয়ে তাকে তুলোধুনো করেছেন তিনি।

[৯] ইনিংসের শেষ ৫ ওভারে ভারতের সংগ্রহ হয় ৭৬ রান। ৫০ বলে ৫ চার ও ৩ ছয়ে ৬৬ রানে অপরাজিত ছিলেন জাদেজা। পান্ডিয়ার ইনিংস সেরা ৯২ রান আসে ৭৬ বলে ৭ চার ও ১ ছয়ে।

[১০] অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে অ্যাস্টন অ্যাগার সর্বোচ্চ দুটি উইকেট নেন।

[১১] চোটে ছিটকে যাওয়া ডেভিড ওয়ার্নারের অভাব টের পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তার জায়গায় নামা মার্নাস লাবুশেন মাত্র ৭ রানে শিকার হন অভিষিক্ত বোলার টি নটরাজন। আগের দুই ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান স্টিভেন স্মিথও একই রান করে শার্দুল ঠাকুরকে উইকেট দেন।

[১২] এই ধাক্কা বেশ জোরেশোরে লেগেছিল অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইনে। অ্যারন ফিঞ্চ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের হাফসেঞ্চুরির ইনিংস কেবল ব্যবধান কমিয়েছে। শার্দুল, যশপ্রীত বুমরাহ ও নটরাজনের বোলিংয়ে সুবিধা করতে পারেনি স্বাগতিকরা। অধিনায়ক ফিঞ্চের ব্যাটে আসে সর্বোচ্চ ৭৫ রান। ৫৯ রান করে বুমরার শিকার হন ম্যাক্সওয়েল।

[১৩] বুমরার সমান দুটি উইকেট নেন নটরাজন। সর্বোচ্চ তিন উইকেট শার্দুলের। ম্যাচসেরা হয়েছেন পান্ডিয়া।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত