প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সৌদি ছাড়া পারস্য উপসাগরীয় সব দেশ ফাখরিজাদেহকে হত্যার নিন্দা জানিয়েছে

রাশিদুল ইসলাম : [২] ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদেহকে হত্যাকাণ্ডের পর পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের দেশ কাতার, ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইরাক, আফগানিস্তান এবং কুয়েত-সহ অন্যান্য দেশ নিন্দা ও সমবেদনা জানিয়েছে। শুধুমাত্র একটি দেশ জানায় নি। ফারস

[৩] তবে খাতিবজাদেহ সৌদি আরবের নাম উল্লেখ না করে বলেন একটি মাত্র দেশ সন্ত্রাসবাদী এ হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডের দায়িত্ব ইসরায়েলের।

[৪] বিভিন্ন দেশ ফাখরিজাদেহকে হত্যার পর ইরানকে ধৈর্যধারণের পরামর্শ দিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন। খাতিবজাদে বলেন, তারা যা খুশি তাই বলতে পারে তবে ইরান স্বাধীনভাবে এর উপযুক্ত জবাব দেবে।

[৫] এদিকে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের কাছে লেখা এক চিঠিতে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ইসরায়েলের অপরাধী তৎপরতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন সাত দশকেরও বেশি সময় ধরে ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর সীমাহীন অত্যাচার, নির্যাতন ও গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছে দেশটি।

[৬] রুহানি বলেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড জবরদখল করে ইসরায়েলের অন্তর্ভুক্ত করা, নিরীহ ফিলিস্তিনিদের হত্যা করা, গাজা উপত্যকার ওপর করোনা পরিস্থিতির কঠিন দিনগুলোতে অবরোধ আরোপ করে রাখা, এবং গাজাবাসীর কাছে ন্যুনতম চিকিৎসা সামগ্রী পৌঁছে দিতে বাধা দেওয়া- মানবতাবিরোধী অপরাধ ছাড়া আর কিছু নয়।

[৭] এদিকে ইরানের পার্লামেন্টের বোর্ড অব ডাইরেক্টর্সের সদস্য আহমাদ আমিরাবাদি ফারাহানি বলেছেন, তার দেশের পরমাণু স্থাপনাগুলো পরিদর্শন করতে আসা জাতিসংঘের বেশিরভাগ পরিদর্শক যুক্তরাষ্ট্রের গুপ্তচর। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে শত্রুরা একের পর এক ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীদের হত্যা করে যাচ্ছে।

[৭] আইএইএ’র মহাপরিচালক রাফায়েল গ্রোসি ইরানি পার্লামেন্টের বিল সম্পর্কে এক প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলোতে পরিদর্শন বন্ধ হয়ে গেলে তাতে কারো লাভ হবে না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত