প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ৪৯ বছরে অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে বিশ্বে একটি উদ্দীপক রাষ্ট্র হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে বাংলাদেশ: ড. আতিউর রহমান

ভূঁইয়া আশিক: [২] বাংলাদেশ ব্যংকের সাবেক গভর্নর আরও বলেন, বাংলাদেশ অনেক দিক থেকেই সফল। কীভাবে, কোন দিক দিয়ে? দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা কমেছে। সামাজিক উন্নয়ন ঘটেছে। মানুষের আয়-আয়ু বেড়েছে। যা বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন।

[৩] যারা বঙ্গবন্ধুকে পছন্দ করে না, যারা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে ছিলো না, তারা বসে নেই। বিভিন্ন রূপ ধারণ করে চেষ্টা করছে কোনোভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অস্বস্তিতে ফেলা যায় কিনা। আমাদের চেষ্টা করে যেতে হবে, বঙ্গবন্ধুকন্যা যেন একটা স্থিতিশীলতা রক্ষা করতে পারেন।

[৪] আর্থিক অন্তর্ভুক্তি, আর্থিক স্থিতিশীলতা এবং গরিবমুখী যেসব নীতিমালার দিকে বঙ্গবন্ধু নজর দিতেন, সেদিকে বঙ্গবন্ধুকন্যাও নজর দিচ্ছেন, কিন্তু ওই জায়গাটা থেকে যেন আমরা কোনোভাবেই সরে না যাই।

[৫] ড. আতিউর বলেন, কিছু চ্যালেঞ্জ আমাদের সামনে আছে, তা অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে মোকাবেলা করতে হবে। কেননা বিশ^ অর্থনীতি মন্দার কবলে পড়তে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিশ^ অর্থনীতি এখন নিম্নগামী। পাশের দেশ ভারতের প্রবৃদ্ধি সাম্প্রতিকালের মধ্যে সবচেয়ে নিম্ন। যেসব নীতিমালা আমাদের জন্য আগে খুব ইতিবাচক ফল দিয়েছে, সেগুলোর প্রতি নতুন করে দৃষ্টি দিতে হবে।

[৬] তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনাই একমাত্র যোগসূত্র বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে আমাদের, এই যোগসূত্র রক্ষা করতে হলে তার হাতকে আমাদের শক্তিশালী করতেই হবে। বঙ্গবন্ধুর আকাক্সক্ষার বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে দিয়েই বাস্তবায়ন সম্ভব। কারণ বঙ্গবন্ধু কী চেয়েছিলেন, শেখ হাসিনাই কেবল খুব ভালো করেই বোঝেন। অন্য যে কারও চেয়ে তিনিই বঙ্গবন্ধুকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন। ফলে শেখ হাসিনাকে আমাদের অকুণ্ঠ সমর্থন দিয়ে যেতে হবে। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত