প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নারীর অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে নির্যাতন বন্ধের দাবি

মনিরুল ইসলাম : [২] বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ (বিএনপিএস), ইউবিআর অ্যালান্স ও এফপিএবি যৌথভাবে আয়োজিত মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে নারীর অগ্রগতি ও উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে সকল ধরনের নির্যাতন বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়েছে।

[৩] সোমবার রাজধানীর শাহবাগে আয়োজিত সমাবেশে বক্তারা ওই দাবি বাস্তবায়নে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ এবং পর্যাপ্ত বিনিয়োগের আহ্বান জানানো হয়।

[৪] আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ উপলক্ষে ‘নারীর জন্য বিশ্ব গড়ো, পর্যাপ্ত বিনিয়োগ করো, সহিংসতা প্রতিরোধ করো’ শ্লোগানকে সামনে রেখে আয়োজিত মানবন্ধন ও সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বিএনপিএস’র উপ-পরিচালক শাহনাজ সুমী।

[৫] সমাবেশে বক্তৃতা করেন এফপিএবি’র প্রকল্প ব্যবস্থাপক হালিমা বেগম, বিএনপিএস’র ইউথ গ্র“পের প্রতিনিধি ফারজানা আক্তার ও উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. হেলালউদ্দিন, সাবেক ছাত্রনেতা মানবেন্দ্র দেব, বিএনপিএস’র ঢাকা কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক শেলিনা পারভীন ও সমন্বয়কারী নাসরীন বেগম, এফপিএবি’র ইউথ গ্রপের প্রতিনিধি মিতু প্রমুখ।

[৬] সমাবেশে হালিমা বেগম বলেন, করোনাভাইরাস মহামারিতে সারা বিশ্বের মানুষ যখন বেঁচে থাকা নিয়ে আতঙ্কিত, তখনো নারীর ওপর চলছে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। বাল্যবিবাহ, যৌতুক, ধর্ষণ, তালাকসহ নানা ভয়াবহ সহিংসতা অনেক বেড়ে যাওয়ায় চরম অনিরাপত্তায় ভুগছে নারীরা।

[৭] বক্তারা বলেন, ক্ষমতা প্রদর্শনের ক্ষেত্রে ধর্ষণকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। যুদ্ধ ও সংঘর্ষকালীন এমনকি গণতান্ত্রিক পরিবেশেও ধর্ষণের ঘটনাকে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। নারীকে অবদমন করে রাখার পিতৃতান্ত্রিক মানসিকতা থেকে সাধারণত ধর্ষণের ঘটনা ঘটানো হয়।

[৮] সভাপতির বক্তব্যে শাহনাজ সুমী বলেন, নারীর ক্ষমতায়ন ও নারীবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত বিনিয়োগ করতে হবে। এই বিনিয়োগ নারীর জন্য কোনো দয়া-দাক্ষিণ্য নয়। এদেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখতে এবং এদেশকে এগিয়ে নিয়ে নারীদের যথেষ্ট অবদান রয়েছে। সমাবেশে বক্তারা ঘরে, বাইরে, পাহাড়ে, সমতলে, পথে, গণপরিবহনে, কর্মক্ষেত্রে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সকল স্থানেই নারী-শিশুরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত