প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মাত্র ৫ রানে ৪ উইকেট নিলেন মোস্তাফিজ

রাহুল রাজ: [২] বঙ্গবন্ধু টি-২০ কাপে আজ (২৮ নভেম্বর) দিনের প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে চট্টগ্রামের বিপক্ষে মাত্র ৮৬ রানেই অলআউট হয়েছে জেমকন খুলনা। সাকিবকদের একাই ধ্বসিয়ে দিয়েছেন চট্টগ্রামের পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। ৩.৫ ওভার বোলিংয়ে মাত্র ৫ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট।

[৩] শনিবার দিনের প্রথম ম্যাচে উইকেট ছিল বেশ ভালই। তবে টস হেরে খুলনার জন্য সেটাই হয়ে গেল কঠিন দুর্গ। নাহিদুলের অফ স্পিন যেন হয়ে গেল নায়ান লায়নের ঘূর্ণি। তার বলেই তালগোল পাকিয়ে শুরুতে খুলনা হারাতে থাকল একের পর এক উইকেট। শুরুটা অবশ্য রান আউটে। এনামুল হক বিজয়ের সঙ্গে ইনিংস ওপেন করতে নেমেছিলেন সাকিব। এনামুলকে ভুল কলে ডেকে রান আউট করান তিনি। নিজেও পোষাতে পারেননি এই ক্ষতি। নাহিদুলের আরেক ওভারে উড়াতে গিয়ে মিড অনই পার করতে না পেরে বিদায় নেন ৩ রান করে।

[৪] ওই ওভারেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও নেই। খুলনা অধিনায়ক নাহিদের সোজা বল ক্রস করতে গিয়ে ব্যাটে পাননি। সহজ এলবিডব্লিও দিতে ভুল হয়নি আম্পায়ারের।

[৫] শরিফুলের বলে শুরুতে ধুঁকলেও পরে সামলে নিয়ে ইমরুল কায়েস দলের রানার চাকা চালু রাখছিলেন। তবে টপটপ উইকেট পড়ায় বেড়ে যায় চাপ। গুটিয়ে যান ইমরুলও। জহুরুল ইসলামকে নিয়ে একটা জুটি গড়ে উঠতে গিয়েও ডানা মেলতে পারেনি। তাইজুল ইসলামের স্পিনে ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে হয়েছেন স্টাম্পিং।

[৬] ইমরুলও শিকার তাইজুলের। স্লগ করতে গিয়ে মিড উইকেটে ধরা পড়ে ২৬ বলে ২১ রান করে ফেরেন তিনি। আগের দুই ম্যাচে খুলনার বিপর্যয়ে জুটি বেধেছিলেন আরিফুল হক আর শামীম পাটোয়ারি। এবার জমল না তাও।

[৭] সাতে নামা শামীম শিকার মোস্তাফিজের। ৭৩ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে বসে খুলনা। ইনিংসেরও তখন পেরিয়ে গেছে ১৩ ওভারের খেলা। আগের দুই ম্যাচে রান পাওয়া আরিফুলের দিকে তাকিয়ে ছিল তারা। এবার আর আরিফুলও উদ্ধার করতে পারেননি দলকে। ৩০ বলে ১৫ করে ১৮তম ওভারে তিনি ক্যাচ দেন মোস্তাফিজের বলে। বাকিরা সামলাতে পারেননি মোস্তাফিজকে। টপাটপ উইকেট নিয়ে চট্টগ্রামের সেরা পেসার গুটিয়ে দেন ইনিংস। – ক্রিকইনফো

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত