প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মোরেলগঞ্জে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেয়া হচ্ছে স্কুল ফিডিং বিস্কুট

সাইফুল ইসলাম: [২] শিশু শিক্ষার্থীদের পুষ্টি চাহিদা পূরণ ও কোভিট-১৯ পরিস্থিতির কারনে চতুর্থ বারের মত বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে বাড়ি বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হচ্ছে স্কুল ফিডিং বিস্কুট। উপজেলার ১৬ ইউনিয়ন ও পৌরসভার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও সরকারের“দারিদ্র পীড়িত এলাকায় স্কুল ফিডিং কর্মসূচি” চলমান রয়েছে।

[৩] এ কর্মসূচির বাস্তবায়কারী সংস্থা রুরাল বিকনস্ট্রাকশন ফাউন্ডেশনের (আরআরএফ) কর্মীরা বৃহস্পতিবার উপজেলার বিভিন্ন বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্কুল শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে এ স্কুল ফিডিং বিস্কুট তুলে দিয়ে এ কার্যক্রমের সূচনা করেছে। এ প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৩০৯ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৪ টি স্বত্যন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা রয়েছে।

[৪] প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. রুহুল আমীন খান (অতিরিক্ত সচিব) এর নির্দেশনায় এবং মোরেলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ দেলোয়ার হোসেন এর অনুমোদন সাপেক্ষে প্রকল্পভুক্ত এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিস্কুট সরবরাহ করা হচ্ছে।

[৫] পর্যায়ক্রমে প্রকল্পভুক্ত ৩১৩ টি স্কুলের ৩২৬৩৩ জন শিক্ষার্থীকে ৫৪-৫৫ প্যাকেট বিস্কুট অভিভাবকরা হাতে হাতে এ বিষ্কুট পাবে। প্রকল্পের ফিল্ড মনিটর তাপস বিশ্বাস,তাসলিমা সুলতানা, পিঝুষ গোস্বামী,সুমন মোল্লা বলেন, উপজেলার সকল শিক্ষার্থীর বাড়ি বাড়িতে গিয়ে এসব বিস্কুট সরবরাহ করা হচ্ছে। সহযোগীতা করছে প্রতিটি বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষকাবৃন্দ। প্রধান শিক্ষিকা ফারজানা বিথি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতেও শিক্ষার্থীরা বাড়িতেই পাচ্ছে এ বিস্কুট। এজন্য অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা ও খুশি।

[৬] প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী তাপস সাধু ও মনিটরিং এন্ড রিপোটিং অফিসার উজ্জল কুমার রায় জানান, উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন এ বিস্কুট শিশুদের পুষ্টিহীনতা , শিক্ষণ ক্ষমতা বৃদ্ধি , ভর্তির হার, স্কুলের উপস্থিতি, এবং স্কুলের প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে কার্যকরী ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। সম্পাদনা: সাদেক আলী

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত