প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গোয়ালন্দে মুন্না ভক্তের উপযুক্ত বিচার চায় এলাকাবাসী

কামাল হোসেন: [২] রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে আসা মৃত নারীদের ধর্ষণের অভিযোগে অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) হাতে গ্রেপ্তারকৃত সহযোগী ডোম মুন্না ভক্তের উপযুক্ত বিচার চায় এলাকাবাসী। মুন্না ভক্ত রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার জুরান মোল্লার পাড়ার রেলষ্টেশন সংলগ্ন সুইপার কলোনীর বাসিন্দা সুইপার দুলাল ভক্তের ছেলে।

[৩] স্থানীয়রা জানান, মুন্না এলাকায় থাকা অবস্থায় পড়াশুনা বাদ দিয়ে স্থানীয় মাদকাসক্ত ও বখাটে ছেলেদের সাথে মেলামেশা করতো সেই থেকে সে নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ে। মুন্না একজন মানুষ হয়ে মৃত মানুষের সাথে এমন জঘন্য কাজ করেছে এর জন্য তাকে বিচারের আওতায় এনে উপযুক্ত বিচার করা হউক, এমন শাস্তি দেয়া হোক যাতে ভবিষ্যতে এমন জঘন্য কাজ কেও করতে সাহস না পায়।

[৪] রোববার সকালে মুন্না ভক্তের বাড়ি গিয়ে কথা হয় তার বাবা দুলাল ভক্তের সাথে, এসময় তিনি জানান- মুন্না গোয়ালন্দ আইডিয়াল হাই স্কুলের ৮ম শ্রেনীতে পড়াকালীন সময়ে স্থানীয় বখাটে ও নেশাগ্রস্থ ছেলেদের সাথে মিশে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ায় লেখাপড়া বাদ দিয়ে দেয়, অনেক চেষ্টা করেও তাকে আর স্কুলমূখী করা যায়নি।

[৫] এমতাবস্থায় ছেলের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে ডোম হিসেবে কাজ করা মুন্নার বড় মামা যতন কুমারের কাছে ডোমের কাজ শেখার জন্য পাঠিয়ে দেয়া হয়। তবে ওইখানে ও এমন একটা জঘণ্য কাজে জড়িয়ে পড়বে তা আমি  বিশ্বাস করতে পারছিনা। মনে হচ্ছে মুন্না ষড়যন্ত্রের শিকার। বিষয়টি ভালভাবে তদন্ত করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করেন তিনি।

[৬] উল্লেখ্য, গত বছরের ২৯ মার্চ থেকে চলতি বছরের ২৩ আগস্ট পর্যন্ত অন্তত ৫জন মৃত নারীকে ধর্ষণ করেছে বলে প্রমান পায় সিআইডি। এই অপরাধে ১৯ নভেম্বর অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) মুন্না ভক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। সম্পাদনা: সাদেক আলী

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত