প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ওয়ালিউর রহমান: শেখ রাজিয়া বললেন, ‘নতুন কাপড়চোপড় আমাদের লাগবে না, যা আছে তা দিয়েই চলতে পারবো’

ওয়ালিউর রহমান : বঙ্গবন্ধুর ছোট ভাই শেখ আবু নাসেরের সঙ্গে আমার খুব পরিচয় ছিলো। তাকে আমি ভালোভাবেই চিনতাম। তিনি আমাদের সঙ্গে জেনেভায় একমাস কাটিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু যখন জেনেভায় গিয়েছিলেন সেখানে তখন শেখ হাসিনা, শেখ রেহানা, শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রাসেল সবাই ছিলো।

তখন শেখ নাসেরের সঙ্গে আমার দেখা, সাক্ষাৎ ও কথা হতো। তিনি দুপুরবেলা বেশি ঘুমাতেন না। নাসের ভাইয়ের সঙ্গে অনেক কথাবার্তাই হতো। তিনি দেশের কথা বলতেন অনেক বেশি। একজন হাস্যেজ্জল ও ভালো মানুষ ছিলেন আবু নাসের ভাই। তিনি কখনো কারও সঙ্গে করতেন না। নানান বিষয়ে কথাবার্তা হলেও নিজের স্ত্রী সম্পর্কে খুব বেশি কিছু বলতেন না।

১৯৭২ সালের সেপ্টেম্বর-অক্টোবর হবে। দেশে থাকা স্ত্রী শেখ রাজিয়াকে টেলিফোন করবেন। আমি ফোন করার ব্যবস্থা করে দিলাম। স্ত্রীর সঙ্গে কথোপথনের একপর্যায়ে নাসের ভাই বললেন, তোমার জন্য কিছু কেনাকাটা করি, কাপড়চোপড় নিয়ে আসি। প্রতিউত্তরে শেখ রাজিয়া বললেন, আমার কাপড়চোপড় দরকার নেই। যা আছে তা দিয়ে চলতে পারবো। তুমি দেশে আসো। তোমার শরীর ভালো না।
শেখ রাজিয়াকে আমি সরাসরি না দেখলেও শেখ নাসের ভাইয়ের সঙ্গে টেলিফোন কথোপকথন থেকেই ওই নারী সম্পর্কে একটা ধারণা তৈরি হয়েছিলো।

টেলিফোন কথোপকথনের মাধ্যমে শোনা কথাবার্তায় বোঝা যায়, কতোটা সহজ-সরল, সাদামাটা জীবনযাপন করতেন এই নারী। আভিজাত্যে তার কোনো আগ্রহ ছিলো না। এই আভিজাত্যহীন,সাদামাটা জীবনযাপন আসলে পুরো বঙ্গবন্ধু পরিবারেরই ছিলো। কেউ প্রয়োজনের বাইরে কেনাকাটা করতেন না। সাদামাটা জীবনযাপন করতেন। বঙ্গবন্ধু পরিবার প্রতিটি কাজে আদর্শ স্থাপন করে গেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত