প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আদমদীঘিতে ভূয়া পুলিশ পরিচয়ে ৫ম বিয়ে করতে গিয়ে বর ও ঘটক আটক

আবু মুত্তালিব: [২] বগুড়ার আদমদীঘিতে ভূয়া পুলিশ পরিচয় দিয়ে ৫ম বিয়ে করতে গিয়ে সাজু মিয়া (২৮) নামের এক বরসহ ঘটক আজম (৩৫) কে আটক হয়েছে পুলিশ। ভূয়া পুলিশ পরিচয়কারি সাজু মিয়া জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর উপজেলার চক ইসলামপুর (ছুতিপুকুরিয়)া গ্রামের হবিবুর রহমানের ছেলে ও ঘটক আজম আদমদীঘির ছোট আখিড়া গ্রামের জপিন উদ্দিনের ছেলে।

[৩] গত ২৪ অক্টোবর শনিবার রাতে আদমদীঘির ছোট আখিড়া গ্রামে ঘটক আজমের বাড়ি থেকে ওই ভূয়া পুলিশকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার নিকট থেকে পুলিশের পোষাক হ্যান্ডকাপ ও পরিচয় পত্র উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় দমদমা গ্রামের কনের মা লাবনী আক্তার বাদি হয়ে উল্লেখিত দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।

[৪] পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গত ২৩ অক্টোবর রাতে সাজু মিয়াকে বর বানিয়ে ঘটক আজম দমদমা গ্রামে আসাদুল ইসলামের মেয়েকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেন। এসময় সাজু মিয়া নওগাঁ পুলিশের চাকুরি করে দাবী করে তার পরিচয়পত্র, পোষাক ও হ্যান্ডকাপ দেখান এবং গত ২৪ অক্টোবর রোববার বিয়ের দিন ধার্য হয়। তাদের কথাবার্তায় কণের মা বাদি লাবলী আক্তারের সন্দেহ হলে তিনি নওগাঁ পুলিশ লাইনে খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারেন সাজু ভূয়া পুলিশ পরিচয়ে তার মেয়েকে প্রতারণা করে বিয়ে করতে এসেছে।

[৫] এরপর লাবনী আক্তার বিষয়টি থানায় অবগত করলে পুলিশ গত শনিবার রাতে উপজেলার ছোট আখিড়া গ্রামের ঘটক আজমের বাড়ি থেকে ভূয়া পুলিশ সাজু মিয়া ও ঘটক আজমকে গ্রেপ্তার করে। এসময় সাজুর নিকট থেকে পুলিশের পোষাক, হ্যান্ডকাপ ও ভূয়া পরিচয়পত্র উদ্ধার করেন। তার এক স্ত্রী আদমদীঘি সদরে একটি বাসায় ভাড়া থাকেন।

[৬] আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীন জানান, সাজু মিয়া নামের ওই যুবকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্থানে ভূয়া পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়া ও প্রতারনার মাধ্যমে একাধিক বিয়ে করার অভিযোগে রয়েছে। এ সংক্রান্ত ঘটনায় নওগাঁ সদর থানায় মামলাও রয়েছে। সাজু বিভিন্ন সময় ৪টির অধিক বিয়ে করেছে। ৫ম বিয়ে করতে গিয়ে ধরা খান প্রতারক সাজু মিয়া। সাদেক আলী

সর্বাধিক পঠিত