প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নিউজিল্যান্ডে নির্বাচনে জিতলো জ্যাসিন্দা আর্ডেনের লেবার পার্টি

লিহান লিমা: [২] সব ব্যালট গণণার পূর্বেই বিরোধী দলীয় নেত্রী জুডিথ কলিনস নির্বাচনে পরাজয় স্বীকার করে নেয়ায় নিউজিল্যান্ডের নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী জ্যাসিন্দা আর্ডেনের মধ্য-বামপন্থী লেবার পার্টির জয় প্রায় নির্ধারিত হয়ে গিয়েছে। আল জাজিরা

[৩] ৭৭ শতাংশ ব্যালট গণণা হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন বলছে, লেবার দল ৪৯ শতাংশ ভোট পেয়েছে, অন্যদিকে কলিন্সের ন্যাশনাল পার্টি ভোট পেয়েছে ২৭ শতাংশ।

[৪] এই নির্বাচনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করেছে করোনা ভাইরাস মহামারী নিয়ন্ত্রণে আর্ডেনের নেতৃত্ব। এছাড়া গত বছর দেশটির ক্রাইস্টচার্চে সন্ত্রাসী হামলার পর জাতিকে ঐক্যবদ্ধ রাখায় তার প্রচেষ্টা এবং দ্রুত অস্ত্র আইনের পরিবর্তন তার ব্যক্তিত্বে শক্তিশালী এবং দয়ালু মাত্রা যোগ করেছে।

[৫] এবারের নির্বাচনে লেবার দল ১২০টি আসনের মধ্যে ৬৪টি আসন পেতে যাচ্ছে, যা ১৯৯৬ সালে দেশটিতে সমানুপাতিক ভোটিং ব্যবস্থা প্রবর্তনের পর যে কোনো দলের পাওয়া সর্বোচ্চ আসন। যদি লেবার দল অর্ধেকেরও বেশি আসন পায় তবে আর্ডেন বর্তমান ব্যবস্থার আওতায় প্রথমবারের মতো একক-দলীয় সরকার গঠন করবেন।

[৬] বিরোধী দলীয় নেত্রী পরাজয় স্বীকার করার পর আর্ডেন অকল্যান্ডে নিজের বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে হাত নাড়ান ও তাদের জড়িয়ে ধরেন।

[৭] পরাজয় স্বীকার করার পর টিভি বিবৃতিতে জুডিথ কলিন্স বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী জ্যাসিন্দা আর্ডেনকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি, কারণ লেবার দল অসাধারণ সফলতা পেয়েছে।’

[৮] নিউজিল্যান্ডের অর্থমন্ত্রী ও শীর্ষ লেবার নেতা গ্র্যান্ট রবার্টসন বলেন, ‘জনগণ তার ওপর খুশি । আমি নিজেও করোনা মোকাবেলার এই সফলতা দেখে আনন্দিত, এটি আমাদের অর্থনীতিকে এদিকে নিয়ে যাচ্ছে।’

[৯] আর্ডেনের বর্তমান জোট সহযোগী দল জাতীয়তাবাদী নিউজিল্যান্ড ফার্স্ট পার্টি নির্বাচনে ২.৬ শতাংশ এবং গ্রিন পার্টি ৭.৬ শতাংশ ভোট পেয়েছে। যদি আর্ডেন এককভাবে লেবার দলে হয়ে সরকার গঠন করতে না পারেন তবে তিনি হয়তো গ্রিন দলের ওপর নির্ভও করতে পারেন। ১৯৭০ সাল থেকেই যৌথভাবে সরকার গঠন করে আসছে লেবার-গ্রিন জোট।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত