প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ওয়াসার চলমান কার্যক্রমে প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সন্তুষ্ট: তাকসিম এ খান

শরীফ শাওন: [২] ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান বলেন, আমরা ওয়াসার ব্যবস্থাপনায় যে আমূল পরিবর্তন এনেছি, তা টেকসই করার আপ্রাণ চেষ্টা করবো। পরিবেশবান্ধব, টেকসই ও গণমুখী পানি ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলতে শতভাগ বৈধ পানি সংযোগ নিশ্চিত করা হবে।

[৩] শুক্রবার ওয়াসার ১০ বছরের অর্জন ও আগামী ৩ বছরের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে ওয়াসা ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তাকসিম এ খান এসব কথা বলেন।

[৪] ওয়াসা জানায়, বর্তমানে ঢাকায় দৈনিক পানির চাহিদা প্রায় ২৪৫-২৫০ কোটি লিটার, ওয়াসার উৎপাদন সক্ষমতা ২৬০-২৬৫ কেটি লিটার। যার মধ্যে ৮৬০টি নলকুল দ্বারা ভূ-গর্ভস্থ থেকে ৬৭ শতাংশ এবং সায়েদাবাদ ফেজ-১ ও ২ এবং পদ্মা যশলদিয়াসহ মোট ৫টি পানি শোধনাগার হতে ৩৩ শতাংশ পানি সরবাহ করা হচ্ছে।

[৫] ২০৩০ সালের মধ্যে পরিবেশবান্ধব টেকসই ও গণমূখী পানি ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে ওয়াটার মাস্টার প্ল্যান প্রনয়ন করা হয়েছে। ২০২৪ সালের মধ্যেই ৩০ শতাংশ ভূ-গর্ভস্থ ও ৭০ শতাংশ পানি শোধনাগার থেকে পানি সরবরাহ করা হবে।

[৬] ইতোমধ্যে রাজধানীর ডিএমএ (ডিষ্ট্রিক্ট মিটারড এরিয়া) পদ্ধতি পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে পুরাতন পানির পাইপ পরিবর্তন করে প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক প্রেসারাইড সুপেয় পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করা হয়েছে। নগরীর ১৪৪টি ডিএমএ এর মধ্যে ৬০টি ডিএমএর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকি ৮৪টি ডিএমএ ২০২১ সাল নাগাদ সম্পন্ন হবে।

[৭] ওয়াসা আরও জানায়, সরকারের ভিশন-২০২১ কে সামনে রেখে ডিজিটাল ওয়াসা বাস্তবায়নে ঢাকা ওয়াসা অনেক অগ্রসর হয়েছে। বিলিং সিস্টেম শতভাগ অটোমেশনের আওতায় আনা হয়েছে। সিস্টেম লস ৪০ শতাংশ থেকে কমে ২০১৬ সালে ২০ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। পরিচালন ব্যয় অনুপাত হারে দশমিক ৯০ শতাংশ থেকে কমিয়ে দশমিক ৬৬ শতাংশে আনা হয়েছে। এছাড়াও রাজস্ব আয় ৩০০ কোটি থেকে ১৩০০ কোটি টাকায় উন্নীত করা হয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত