প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গণপূর্তের প্রকৌশলীদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের দাবী জানিয়েছে আইইবি

আসাদুজ্জামান সম্রাট : [২] গণপূর্ত অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও নির্বাহী প্রকৌশলীর পদ যথাক্রমে গ্রেড-২, ৩ ও ৪ এ উন্নত করা ও গণপূর্ত অধিদপ্তরের অর্গানোগ্রাম দ্রুত অনুমোদনের ব্যবস্থা গ্রহণসহ বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরে তা সমাধানের জন্য গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদের কাছে দাবি জানিয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর নবনির্বাচিত নেতারা।বৃহস্পতিবার দুপুরে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সৌজন্য সাক্ষাতে এ দাবি জানান। সাক্ষাত অনুষ্ঠানের শুরুতে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি সংগঠনের নবনির্বাচিত সদস্যদের মুজিব বর্ষের শুভেচ্ছা জানান। সাক্ষাৎকালে সংগঠনের নবনির্বাচিত সদস্যগণ প্রকৌশলীদের এই শীর্ষ সংগঠনের কার্যক্রম সম্পাদনে প্রতিমন্ত্রীর সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।এ সময় সংগঠনটির নবনির্বাচিত সভাপতি প্রকৌশলী মো. নুরুল হুদা গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন দপ্তর সংস্থায় কর্মরত প্রকৌশলীগণের বিভিন্ন সমস্যা সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রীকে অবহিত করেন। এসব সমস্যা সমাধানে আইইবি এর পক্ষ থেকে প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য তিনি কতিপয় প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

[৩] প্রস্তাবসমূহের মধ্যে বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড (বিএনবিসি) ও রাজউক-এর ডিটেইলড এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) যথাশীঘ্র অনুমোদনের ব্যবস্থা করা, নির্বাহী প্রকৌশলী এবং তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীদের ব্যক্তিগত গাড়ি ক্রয় করার জন্য সরকারের লোন অনুমোদনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা, প্রকৌশলীদের গ্রেড অনুযায়ী পদসমূহকে ওয়ারেন্ট অব প্রিসিডেন্স এ যথাযথ স্থান প্রদান করা এবং সকল দপ্তর অধিদপ্তরে নিয়মিতভাবে শূন্যপদ পুরন ও পদোন্নতি নিশ্চিত করতে প্রতিমন্ত্রীর সহযোগিতা কামনা করেন। এছাড়া তিনি প্রচলিত আইন ও নিয়মবহির্ভূতভাবে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন করে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বিভিন্ন পদে পদোন্নতির আদেশ বাতিল করার অনুরোধ জানান।

[৪] তিনি প্রকৌশল সংস্থাগুলোতে সংস্থা প্রধান পদে অভিজ্ঞ প্রফেশনাল ইঞ্জিনিয়ারদের নিয়োগ প্রদান এবং রাজউক, সিডিএ, কেডিএ ও আরডিএসহ সকল উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বহুতল ভবন নির্মাণে অনুমোদনকারী কমিটিতে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) এর প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করতে ব্যবস্থা গ্রহণ করার অনুরোধ জানান।

[৫] প্রতিমন্ত্রী তার বক্তব্যে এসব দাবি-দাওয়া সক্রিয় বিবেচনার আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রকৌশলীদের ভূমিকা অপরিসীম। তারা সমাজের সবচেয়ে মেধাবী, দায়িত্বশীল এবং অগ্রগামী উন্নয়নকর্মী। দেশের অবকাঠামো উন্নয়নে প্রকৌশলীদের কোনো বিকল্প নেই। তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে সকল সমস্যা সমাধানে সরকার আন্তরিক। যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের এসব দাবি-দাওয়া যথাশীঘ্র বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন তিনি। অনুষ্ঠান শেষে আইইবির নবনির্বাচিত সদস্যগণ প্রতিমন্ত্রীকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত