প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায় ১শ ৮৩ মন্ডপে চলবে দূর্গাপূজা

গিয়াস উদ্দীন : [২] দুর্গাপূজা বা দুর্গোৎসব হল হিন্দু দেবী দুর্গার পূজাকে কেন্দ্র করে প্রচলিত একটি উৎসব। দুর্গাপূজা সমগ্র হিন্দুসমাজেই প্রচলিত। বাঙালি হিন্দু সমাজে এটি অন্যতম বিশেষ ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব। আশ্বিন মাসের শুক্লপক্ষে দুর্গাপূজা করা হয়।

[৩] এ দুর্গাপূজা ভারত, বাংলাদেশ ও নেপাল সহ ভারতীয় উপমহাদেশ ও বিশ্বের একাধিক রাষ্ট্রে পালিত হয়ে থাকে। তবে বাঙালি হিন্দু সমাজের প্রধান ধর্মীয় উৎসব হওয়ার দরুন বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরা রাজ্যে দুর্গাপূজা বিশেষ জাঁকজমকের সঙ্গে পালিত হয়। ভারতের অসম, বিহার, ঝাড়খন্ড, মণিপুর এবং ওড়িশা রাজ্যেও দুর্গাপূজা মহাসমারোহে পালিত হয়ে থাকে।

[৪] প্রতি বছরের ন্যয় এবারো চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা ও পৌরসভায় দূর্গাপূজাকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে মণ্ডপে মণ্ডপে পটিয়ায় উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় মোট ১শ ৮৩টি দূর্গাপূজা মন্ডপের আয়োজন করেছেন। বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ পটিয়া উপজেলা।

[৫] বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ পটিয়া উপজেলার প্রধান সম্বয়ক পুলক চৌধুরী বলেন,পটিয়া পৌরসভায় পূজামন্ডপ হবে ১৪টি। পটিয়ায় পৌরসভার পক্ষ থেকে পৌর সদরের প্রতিটি মন্ডপের জন্য ৫ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করবেন। পটিয়ার সংসদ সদস্য হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর পক্ষ থেকে উপজেলার প্রতিটি মন্ডপের জন্য ৫ হাজার টাকা ও সনাতনী দুস্থ প্রতিটি পরিবারের জন্য বস্ত্র বিতরণ করা হবে।

[৬] বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ পটিয়া উপজেলার সভাপতি রূপক শীল বলেন, পটিয়া উপজেলায় ১৭ ইউনিয়নে পটিয়া সদরসহ এবার সার্বজনীন ও পারিবারিক পূজা মন্ডপসহ মোট ১শ ৮৩টি মণ্ডপে শারদীয় দূর্গাপূজার আয়োজন করা হবে। সবচেয়ে বেশি ২৪টি পূজামন্ডপ ধলঘাট ইউনিয়নে। সবচেয়ে কম পূজামন্ডপ ২টি কুসুমপুরা ইউনিয়নে । প্রতি বছর দূর্গাপূজার প্রতিটি মন্ডপের জন্য চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ৫শ কেজি চাল প্রদান করা হতো। আমরা এবারো জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেছি। আশা করি এবারো জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে এ অনুদান পাবো।

[৭] চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সাথে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ পটিয়া উপজেলার আগামী ১৪ অক্টোবর মত বিনিময় এবং পটিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে আগামী ১৫ অক্টোবর মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হবে।

[৮] বুধবার ২১ অক্টোবর থেকে শ্রীশ্রী শারদীয়া দূর্গাদেবীরপঞ্চমী বিহিত পূজা প্রশস্তা। সায়ংকালে দেবীর বোধন। এরপর ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার শ্রীশ্রী দূর্গা ষষ্ঠী। শ্রীশ্রী শারদীয়া দূর্গাদেবীর ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ(৩য় কল্প), এবং ষষ্ঠী বিহিত পূজা প্রশস্তা, সায়ংকালে দেবীর আমন্ত্রণ ও অধীবাস। ২৩ অক্টোবর শুক্রবার শ্রীশ্রী দূর্গা সপ্তমী। শ্রীশ্রী শারদীয়া দূর্গাপূজা। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

শ্রীশ্রী শারদীয়া দূর্গাদেবীর নবপত্রিকা প্রবেশ, স্থাপন, সপ্তম্যাদি কল্পারম্ভ (৪র্থ কল্প) এবং সপ্তমী বিহিত পূজা প্রশস্তা। দেবীর দোলায় আগমণ। ২৪ অক্টোবর শনিবার শ্রীশ্রী দূর্গা মহাষ্টমী। শ্রীশ্রী শারদীয়া দূর্গাদেবীর মহাষ্টম্যাদি কল্পারম্ভ(৫ম কল্প), কেবল মহাষ্টমী কল্পারম্ভ(৬ষ্ঠ কল্প) ও মহাষ্টমী বিহিত পূজা প্রশস্তা, দুপুরে সন্ধিপূজারম্ভ এবং সন্ধিপূজা সমাপন।

২৫ অক্টোবর রবিবার শ্রীশ্রী মহা নবমী। শ্রীশ্রী শারদীয়া দূর্গাদেবীর কেবল মহানবমী কল্পারম্ভ (৭ম কল্প) ও মহানবমী বিহিত পূজা প্রশস্তা। বীরাষ্টমী ও মহাষ্টমীব্রতের পরাণ। শারদীয়া নবরাত্রীকব্রত সমাপন। ২৬ অক্টোবর সোমবার শ্রীশ্রী বিজয়াদশমী। শ্রীশ্রী শারদীয়া দূর্গাদেবীর দশমী বিহিত পূজা সমাপনান্তে বিসর্জ্জন প্রশস্তা।

এদিকে দূর্গাপূজাকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে পটিয়া উপজেলার মণ্ডপে মণ্ডপে। পটিয়ার পৌরসদর, ছনহরা, ভাটিখাইন, কেলিশহর, কালিয়াইশ, গোবিন্দারখীল, ধলঘাট, আশিয়া, জীরি, শোভনদন্ডী, কচুয়াই সহ সব পূজা মন্ডপগুলোতে কাজ চলছে পুরোদমে। ইতোমধ্যে অনেক জায়গায় আলোকসজ্জার পাশাপাশি মন্ডপের সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ চলছে।

 

সর্বাধিক পঠিত