প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] এবারের নোবেল বিজয়ী চার নারী ই বিশ্বব্যবস্থা থেকে পুরুষতন্ত্রের অবসান চান

দেবদুলাল মুন্না:[২] এই চার নোবেল জয়ী হচ্ছেন সহিত্যে লুইস গ্লিক, পদার্থ বিজ্ঞানে আন্দ্রিয়া ঘেজ , রসায়নে যৌথভাবে ইমানুয়েল শারপেনটিয়ের ও জেনিফার এ ডাউডনা । ইউটিউব চ্যানেল এইটটিন এ একটি রিয়েলিটি শোতে তাদের বরাতে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

[২] ফেমিনা জানায়, লুইস গ্লিকের বেশির ভাগ কবিতায় স্থান পেয়েছে হৃদয়ের স্পর্শকাতরতা, একাকিত্ব, পারিবারিক বন্ধন, বিবাহবিচ্ছেদ, কাম, ক্রোধ, বেদনা, হতাশা ইত্যাদি। তার প্রথম কবিতার বই ‘ফার্স্টবর্ন’ এ তিনি পুরুষতন্ত্রের বিরুদ্ধে বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেছেন। ‘আ ভিলেজ লাইফ’ নামে গ্লিকের লেখা বইয়ের ভুমিকায় তিনি বলেছেন, নারী রেপ হয় বেশি, কোথাও তো পুরুষ রেপের কথা শুনি না। এর কারণ পুরুষের ক্ষমতাকেন্দ্রিক ভরকেন্দ্র। পুরুষ না।

[৩] ইমানুয়েল শারপেনটিয়ের ও জেনিফার এ ডাউডনা চ্যানেল এইটটিনকে বলেন, পুরুষতন্ত্রকে বাদ দিতে হবে। এখন নারীরা জ্ঞান বিজ্ঞানের কোনো শাখাতেই পিছিয়ে নেই। সেনাবাহিনী থেকে শুরু করে মহাকাশেও যাচ্ছে যাচ্ছে। ফলে সমাজে নারীকে হেয়ভাবে দেখার দিন শেষ হয়েছে বহু আগেই।

[৪] আন্দ্রিয়া ঘেজ জানান,সুপারম্যাসিভ ব্ল্যাকহোলকে প্রদক্ষিণ করছে এমন ৩ হাজার নক্ষত্র নিয়ে তিনি কাজ করেছেন। ব্ল্যাকহোলের ঘনত্ব এত বেশি যে কোনো ভারী মহাজাগতিক বস্তুর অভিকর্ষ বল বা অসম্ভব জোরালো টানে আশপাশে থাকা প্রায় সবকিছুই তার মধ্যে ঢুকে পড়ে, এমনকি আলোও। অনেক নক্ষত্রের মাঝে এমন একটি ব্ল্যাকহোল আছে। পুরুষতন্ত্র হলো অনেকটা ব্ল্যাকহোলের মতো। সবকিছুতে ঢুকে পড়তে চায়। এটা ঠিক না। একে গুডবাই দিতে হবে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত