প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] এবছর আর এইচএসসি পরীক্ষা হচ্ছে না, শিক্ষার্থীদের ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যায়ন করে ফলাফল দেয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী

তাপসী রাবেয়া: [২] ২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। অনেক বিচার বিশ্লেষণ করে এইচএসসি পরীক্ষা সরাসরি না নিয়ে ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রণালয়।

[৩] বুধবার এইচএসসি পরীক্ষা বিষয়ে ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব সিদ্ধান্ত জানান শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, জেএসসি এবং এসএসসি’র ফলাফলের ভিত্তিতে তাদের এইচএসসি’র ফলাফল নির্ধারণ করা হবে।

[৪] শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে যেভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়, সেভাবে হলে শিক্ষার্থীদের পাশাপশি পরীক্ষা আয়োজনের সাথে জড়িতদের মধ্যেও করোনাভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকতে পারে। তাই ভিন্নভাবে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

[৫] তিনি বলেন, এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়নের পদ্ধতি যেন আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত হয়, সে বিষয়টি মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। চূড়ান্ত ফলাফল কী হবে তা ডিসেম্বরের মধ্যে জানানো হবে।

[৬] তিনি বলেন, জেএসসি ও এসএসসির ফলের গড়ের মাধ্যমে এইচএসসির ফলাফল নির্ধারিত হলেও গড়ের ক্ষেত্রে কোন পরীক্ষার ফলের গুরুত্ব কতটুকু থাকবে তা ফলাফল সংক্রান্ত পরামর্শক কমিটি নির্ধারণ করবে ।

[৭] পরামর্শক কমিটির আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করবেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব। এছাড়া ৯টি শিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়ক হিসেবে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, কারিগরি শিক্ষা বোর্ড ও মাদ্রাসা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও স্বাস্থ্য ও শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রতিনিধিও থাকবেন এই কমিটিতে।

[৮] এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ওপর পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির বিষয়টিও নির্ভর করে, তাই বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একজন করে প্রতিনিধিও থাকবেন পরামর্শক কমিটিতে।

[৯] শিক্ষামন্ত্রী জানান, গতবছর যারা এইচএসসি পরীক্ষায় ফেল করেছে, সেসব শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নও তাদের জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে করা হবে। যেসব শিক্ষার্থী বিভাগ পরিবর্তন করেছে – বিজ্ঞান থেকে মানবিক বা কলা বিভাগে গিয়েছে যারা – তাদের ফলাফলও নির্ধারিত হবে পরামর্শক কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী। দেশে ২০২০ সালের উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমানের পর্যায়ে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৩ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৯ জন। সম্পাদনা: বাশার নূরু

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত