প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আরিফ জেবতিক: গ্লোবের ভ্যাকসিন সম্পর্কে বাংলার অদ্ভুত সাংবাদিকতা!

আরিফ জেবতিক: ”গ্লোব বায়োটেকের উদ্ভাবিত “ব্যানকোভিড” ভ্যাক্সিন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সক্ষম বলে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানিয়েছে মার্কিন মেডিক্যাল গবেষণা জার্নাল বায়োআর্কাইভ।”- আমি এই খবরটা বুঝতে পারছি না।

মানে জার্নালে তো গবেষণা প্রকাশ হয়, জার্নাল নিজেই গবেষণা করে একটা সিদ্ধান্ত দেবে-এমনটা কখনো শুনিনি। তবে মেডিক্যাল জার্নালের বিষয়টা কি আলাদা কিছু নাকি আমাদের সাংবাদিকরা ভুল বুঝছেন?

এটি জার্নালে জমা দিয়েছেন যারা তাঁরা হচ্ছেন- Juwel Chandra Baray, Md. Maksudur Rahman Khan, Asif Mahmud, Md. Jikrul Islam, Sanat Myti, Md. Rostum Ali, Md Enamul Haq Sarker, Samir Kumar, Md. Mobarak Hossain Chowdhury, Rony Roy, Faqrul Islam, Uttam Barman, Habiba Khan, Sourav Chakraborty, Md. Manik Hossain, Md. Mashfiqur Rahman Chowdhury, Polash Ghosh, Mohammad Mohiuddin, Naznin Sultana, Kakon Nag

এর মধ্যে বাকি গবেষকদেরকে আমি চিনি না ( এটা আমার অযোগ্যতা, আমি এই সেক্টরের লোক নই) তবে আসিফ মাহমুদ সম্ভবত বায়োটেকের আসিফ মাহমুদই। অন্যরাও একই প্রতিষ্ঠানের গবেষক হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। উনারা উনাদের রিসার্চ ফাইন্ডিং জার্নালে জমা দিয়েছেন যা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।

কিন্তু যে এবস্ট্রাক্ট পাবলিশ হয়েছে, সেখানে জার্নালের তরফ থেকে উল্লেখ করা হয়েছে, ”bioRxiv is receiving many new papers on coronavirus SARS-CoV-2. A reminder: these are preliminary reports that have not been peer-reviewed. They should not be regarded as conclusive, guide clinical practice/health-related behavior, or be reported in news media as established information.”

মানে, peer-reviewe হয় নি, বা সহজ ভাষায়, আপনি নিজে আর্টিকেল লিখে নিজে ক্লেইম করেছেন, অথেনটিক থার্ডপার্টি কেউ আপনার দাবির পক্ষে বিপক্ষে কিছু এখনও বলে নি।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে, জার্নাল নিজেই বলছে, ‘They should not be regarded as conclusive, guide clinical practice/health-related behavior, or be reported in news media as established information.”
যার সহজ বাংলা হচ্ছে, এটিকে তথ্য হিসেবে ধরে নিয়ে মিডিয়ায় রিপোর্ট করা যাবে না।

কিন্তু আমাদের এখানে কয়েকটা মিডিয়া বিষয়টাকে এমনভাবে উপস্থাপন করছে যাতে মনে হয়, বোধহয় ঐ জার্নাল নিজেরা গবেষণা করে রায় দিয়েছে যে এটি কার্যকরী অষুধ।

আমি বলছি না যে এটি কার্যকরী ভ্যাকসিন হতে পারে বা না পারে, সেটি ভিন্ন প্রসঙ্গ। কিন্তু এটি এখনও প্রতিষ্ঠিত সত্য নয়।
একমাত্র প্রতিষ্ঠিত বিষয় হচ্ছে, আমাদের কিছু কলিগ সাংবাদিক আর কিছু মিডিয়ার মিনিমাম কমনসেন্স নাই।

(ফুটনোট : এই স্ট্যাটাসটি এডিট করে তথ্য যুক্ত করা হয়েছে। প্রথমেই আমার খটকা লাগায় সেজান মাহমুদ ভাই ও রাগিব হাসান ভাইকে আমি ট্যাগ করেছিলাম। সেজান ভাই এবং আরো কয়েকজন কমেন্টে জানিয়েছেন যে, এটি আসলে জার্নালও না, এটি প্রিপ্রিন্ট সার্ভার। এখানে অনেকটা ড্রাফট জমা রাখার মতো ব্যাপার, এই সাইটকেই জার্নাল হিসেবে দাবি করা ভুল। )

বাংলার সাংবাদিকতা অদ্ভুত !! ফেসবুক থেকে

সর্বাধিক পঠিত