প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁদ পেতে ৯ জন খুন করে আদালতে স্বীকার করল ‘টুইটার কিলার’

রাশিদুল ইসলাম : [২] খুনি বিনা অনুমতিতে কাউকে খুন করেনি। মৃত্যুর আগে প্রত্যেকে তাকে বলেছিল, তুমি আমাকে খুন করতে পার। জাপানের এক আদালতে এমনই আজব দাবি করলেন ‘টুইটার কিলার’-এর আইনজীবী। গত বুধবার টুইটার কিলার স্বীকার করেন, তিনি টুইটারে যোগাযোগ করে তাদের খুন করেছেন। জাপান টাইমস

[৩] টুইটার কিলারের নাম তাকাহিরো শিরাইশি। বয়স ২৯। আইনজীবী দাবি করেন, যারা টুইটারে আত্মহত্যা করার ইচ্ছা প্রকাশ করতেন, তাকাহিরো বেছে বেছে তাদেরই খুন করেছেন। তার শাস্তি লঘু করা উচিত।

[৪] খুন করার পরে তাকাহিরো মৃতদেহগুলিকে টুকরো টুকরো করে ফেলতেন। সেগুলি কুল বক্সে ভরে রেখে দিতেন। আদালতে যখন তার খুনের অভিযোগ করে তিনি প্রতিবাদ করেননি। উল্টে বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য। তাকাহিরোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগও আছে।

[৫] তাকাহিরোর শিকার হয়েছে ১৫ থেকে ২৬ বছর বয়সী ছেলেমেয়েরা। তিনি টুইটারে খুঁজে দেখতেন, কারা আত্মহত্যার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। তাদের বলতেন, আমি আপনাকে মরতে সাহায্য করব। কাউকে বলতেন, আমিও আপনার সঙ্গে আত্মহত্যা করতে চাই।

[৬] অপরাধ প্রমাণিত হলে তাকাহিরোকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে। জাপানে সাধারণত ফাঁসি দিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। তাকাহিরো নিজে বলেন, আমি কারও কাছে অনুমতি নিইনি।

[৭] তিন বছর আগে ২৩ বছর বয়সী এক মহিলা টুইটারে লেখেন, তিনি আত্মহত্যা করতে চান। তারপরে আর তার খোঁজ পাওয়া যায়নি। পুলিশ তদন্ত করে তাকাহিরোর সন্ধান পায়।

সর্বাধিক পঠিত