প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ: আলোক বর্তিকা শেখ হাসিনার জন্য তিনটি প্রার্থনা

ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ: প্রার্থনা ব্যক্তি, কর্ম, সামাজিক, রাজনৈতিক এবং আন্তর্জাতিক জীবনে আপনার অর্জন অব্যাহত থাকুক প্রিয় বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। একই সাথে কামনা করি আপনার হাত ধরে বাংলাদেশ নিত্যনতুন মার্গে উন্নীত হোক। তবে আপনার জন্য লিখিত এই জন্মদিন বার্তায় আমি আপনার জন্য তিনটি বিশেষ প্রার্থনা করতে চাই। প্রথমেই প্রার্থনা করি, আপনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ থেকে কখনোই যেন বিচ্যুত না হন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ মানেই বাংলাদেশ রাষ্ট্রের আদর্শ; ১৯৭২ সালের আমাদের পবিত্র সংবিধানের আদর্শ। মহান মুক্তিযুদ্ধের অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের একটি ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র উপহার দিয়েছেন। রাজনৈতিক দুর্বৃত্তরা আমাদের সেই পবিত্র সংবিধানকে কেটে-ছিঁড়ে একাকার করেছে। দোয়া করি হাজারো প্রতিবন্ধকতা এড়িয়ে আপনি আমাদের জন্য ১৯৭২ সালের সেই পবিত্র সংবিধানকে ফিরিয়ে আনবেন।

দ্বিতীয় প্রার্থনা করি, আপনার চারপাশে থাকা অতি চাটুকার লোকজন যেন আপনার দূরদর্শিতাকে কোনোভাবে বিঘ্নিত না করতে পারে। আপনি প্রজ্ঞাবান। আপনি অভিজ্ঞ। আপনি আপনার প্রজ্ঞা এবং অভিজ্ঞতার আলোকে এই সব নব্য চাটুকারদের থেকে নিজেকে রক্ষা করে চলবেন। আপনার চারপাশে ক্ষমতার নোংরা সিন্ডিকেট আপনাকে এবং আপনার দল ও সরকারকে বারবার বিব্রত করে চলেছে। এরা আপনার ভালো চায় না। আপনি তাদের চিনেন এবং জানেন, কিন্তু কে নো কারণে সময়মতো উপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহণে বাধাগ্রস্ত হন। আপনার জন্মদিনে তাই প্রার্থনা করি আপনি যেকোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতাকে জয় করতে পারেন। দেশের জনগণ আপনার সাথে আছে। সিন্ডিকেটের কালো হাত আপনি গুড়িয়ে দিন।
তৃতীয় প্রার্থনা করি, যোগ্য এবং দেশপ্রেমী লোকদের হাতে আপনি আগামীর নেতৃত্ব তুলে দিন। যারা গরিবের সামান্য ভাতা বা ত্রাণে ভাগ বসায়, টিআর/কাবিখার টাকা মেরে খায়, দুর্নীতির বেড়াজালে আপনার উন্নয়নকে ভূলুণ্ঠিত করে, তাদের থেকে আপনি ক্ষমতা কেড়ে নিয়ে উদাহরণ স্থাপন করুন। পথটা সহজ নয় জানি, তবু এই কাজ আপনাকেই করতে হবে। আর আপনি তা পারবেন বলেই আমি বিশ্বাস করি।

সবশেষে, আপনার জন্মদিনে একটি প্রার্থনা অবশ্যই করবো না। আর তা হলো মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারীদের প্রশ্নে আপনি যেন অতি উদার মানসিকতা ধারণ করেন। আপনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের অসমাপ্ত কাজ শেষ করেছেন। তবে একাত্তরের পরাজিত শক্তিকে আপনি ক্ষমা তো দূরে থাক, আপনার আশে-পাশেও ভিড়তে যেন না দেন। শত্রুর বিনাশ অংকুরেই উত্তম, মহীরুহ হয়ে উঠলে তা অক্টোপাসের মতো আপনাকে আষ্টে-পৃষ্টে জড়িয়ে ধরবে। দেশ, জাতি এবং আপনার জন্য ভয়ঙ্কর পরিণতির কারণ হয়ে উঠবে। আবারও জন্মদিনের নিরন্তর শুভ কামনা। সহস্রাব্দ অবধি আপনি বেঁচে থাকুন আমাদের মাঝে। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু। শুভ জন্মদিন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী।

লেখক : আইনজীবী, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত