প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পুঁজিবাজারের বিশেষ তহবিলে সুদহার কমাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

মো. আখতারুজ্জামান : [২] পুঁজিবাজারকে চাঙ্গা করতে বিশেষ তহবিল গঠনের নির্দেশ দিয়েছিলো বাংলাদেশ ব্যাংক। এ তহবিলের সুদহার আগের থেকে কমিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

[৩] পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের উদ্দেশ্যে বিশেষ তহবিল গঠন এবং বিনিয়োগের নীতিমালা উপর্যুক্ত বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক গত ১০ ফেব্রুয়ারি জারিকৃত ডিওএস সার্কুলারের মাধ্যমে তফসিলি ব্যাংকসমূহ কর্তৃক পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের উদ্দেশ্যে বিশেষ তহবিল গঠন এবং ওই তহবিল হতে বিনিয়োগের বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

[৪] এছাড়া বর্তমানে মুদ্রা বাজারের পরিবর্তিত পরিস্থিতির সাথে সামঞ্জস্যতা বিধান করার জন্য উল্লিখিত সার্কুলারটির কতিপয় নির্দেশনার বিষয়ে নিম্নোক্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। বিশেষ তহবিল গঠনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক হতে রেপো সুবিধার মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহের ক্ষেত্রে ডিওএস সার্কুলারে বলা হয়েছে সুদ হার ৫ শতাংশের স্থলে ৪.৭৫ শতাংশ হবে।

[৫] ভেরিয়েবল রেট হবে ন্যূনতম সুদের হার কুপন প্রদানের মাসের অব্যবহিত পূর্বে সমাপ্ত মাসে বিদ্যমান সর্বশেষ ইস্যুকৃতের কম হতে পারবে না। সেই সঙ্গে ১০ বছর মেয়াদি ট্রেজারি বন্ডের সুদ হার ১.০০ শতাংশ হবে।

[৬] এছাড়াও যেকোন মেয়াদের সরকারি বন্ড বা বিল, সম্পদভিত্তিক বন্ড বা সুকুক এর ক্ষেত্রে- ফিক্সড রেট ন্যূনতম ৮ শতাংশ কুপন বা মুনাফাবাহী হতে হবে। ভেরিয়েবল রেট হবে ন্যূনতম মুনাফা বা সুদের হার কুপন প্রদানের মাসের অব্যবহিত পূর্বে সমাপ্ত মাসে বিদ্যমান সর্বশেষ ইস্যুকৃতের কম নয়। যার মেয়াদ হবে ১০ বছর। ট্রেজারি বন্ডের সুদ হার ০.৫০ শতাংশ।

[৭] এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে। ডিওএস সার্কুলারের অন্যান্য নির্দেশনা অপরিবর্তিত থাকবে। তবে ওই সার্কুলারের অধীনে চলমান রেপো সমূহের মেয়াদপূর্তিতে নতুন হার কার্যকর হবে।

[৮] এদিকে, বেশ কয়েকটি ব্যাংক তহবিল গঠনে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও সংশ্নিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

[৯] ব্যাংকগুলোর মধ্যে রাষ্ট্রীয় মালিকানার সোনালী ও অগ্রণী ব্যাংক, বেসরকারি খাতের ঢাকা ব্যাংক, দি সিটি ব্যাংক, আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক, শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক, এনআরবি কমার্শিয়াল ও ইবিএল আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেছে বলে জানা গেছে। এর বাইরেও আরও দুটি ব্যাংক এ বিষয়ে কাজ করছে। এগুলোর মধ্যে কোনো কোনো ব্যাংক বিও অ্যাকাউন্ট খুলেছে বলে জানা গেছে।

[১০] কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্র জানিয়েছে, বিশেষ তহবিল গঠনের বিষয়ে খুঁটিনাটি জানতে বেশ কিছু ব্যাংক যোগাযোগ করলেও কেউ এখন পর্যন্ত তহবিলের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে আবেদন করেনি। কয়েকটি ব্যাংক এখন নিজস্ব তহবিল থেকে বিনিয়োগ করছে বলে জানিয়েছে। তহবিল গঠনের শর্ত অনুযায়ী, পৃথক ব্যাংক এবং বিও অ্যাকাউন্ট খুলেছে বলে অনানুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানিয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত