প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চীনের জিনঝিয়াং প্রদেশে ৩৮০টি আটক কেন্দ্র; ১০ লাখ বন্দির বেশিরভাগই উইঘুর ও তুর্কি ভাষার মুসলিম: গবেষণা

সিরাজুল ইসলাম: [২] দ্য অস্ট্রেলিয়ান স্ট্রেটেজিক পলিসি ইনস্টিটিউট (এএসপিআই) গবেষণায় এ তথ্য জানিয়েছে। আগে যা ভাবা হতো তার চেয়ে অনেক বেশি আটক কেন্দ্র ও বন্দির সংখ্যা। বৃহস্পতিবার গবেষণাটি প্রকাশ করা হয়। আলজাজিরা

[৩] চীন বলছে, এসব কেন্দ্রে বিভিন্ন ধরনের কাজের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। চরমপন্থার হুমকিও মোকাবেলার কৌশল এটা। মূলত তাদের শিক্ষিত করাই এর লক্ষ্য। তবে জোর করে প্রশিক্ষণ দেয়াকে নির্যাতন বলছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। তারা এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আসছে।

[৪] গবেষক নাথান রুসার বলেন, চীনা কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেয়ার দাবি ডাহা মিথ্যা। সেখানে অনেক লোককে বেআইনীভাবে আটকে রাখা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। অনেককে কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্যে রাখা হয়েছে।

[৫] গবেষণার জন্য স্যাটেলাইট ইমেজ, গণমাধ্যমের প্রতিবেদন, নির্মাণ কাজের টেন্ডার বিশ্লেষণ করা হয়েছে। জুলাইয়ে ৬১টি আটক কেন্দ্রের সম্প্রসারণ কাজ শুরু হয়েছে। নির্মাণ কাজ চলছে ৪০টির। এছাড়া ৭০টির দেয়াল অপসরাণ করা হয়েছে। ৯০ শতাংশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নাজুক।

[৬] জিনজিয়াং প্রদেশের সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের অন্তবর্তী শিবিরে আটক রাখার পাশাপাশি নজরদারি, ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক বিশ্বাসে বাধা এবং জোর করে বন্ধ্যাকরণের নানা অভিযোগ রয়েছে। তবে চীন বরাবরই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত