প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কোভিড-১৯ : বিদেশ যেতে পারেননি সাড়ে তিন লাখ কর্মী, সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ফেরত এসেছেন ১ লাখ ২৭ হাজার

কূটনৈতিক প্রতিবেদক: [২] প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের তথ্য বলছে, বিদেশ ফেরত শ্রমিকদের পুনর্বাসনে ডাটাবেস খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু ফেরত আসা শ্রমিকদের সুনির্দিষ্ট কোন ডাটাবেস নেই। প্রয়োজনীয় আইনি সহায়তা পচ্ছেন না ফেরত আসা শ্রমিকরা।

[৩] শনিবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ বিলসের উদ্যোগে আয়োজিত ওয়েবিনারে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রধান শরীফুল বলেন, বাংলাদেশ থেকে যত শ্রমিক বিদেশ যাচ্ছে তার প্রায় অর্ধেক অদক্ষ।

[৪] অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক পাঠানোর খরচ বেশি হলেও সে তুলনায় শ্রমিকরা মজুরি পাচ্ছেন না।

[৫] কোভিড-১৯ মহামারির সময়ে বিদেশে কর্মসংস্থান অনেক কমেছে। শ্রমিকদের জন্য স্বল্প এবং দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নেওয়া প্রয়োজন।

[৬] প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শহীদুল আলম (এনডিসি) বলেন, প্রতি বছর বাংলাদেশের শ্রমবাজারে ২২ লাখ কর্মক্ষম মানুষ যুক্ত হলেও প্রায় ৭ লাখ শ্রমিক কর্মসংস্থানের জন্য বিদেশ গমন করছেন।

[৭] প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় কর্মসংস্থানের বিষয়টি যুক্ত করার ওপর গুরুত্ব দেওয়ার কথা উল্লেখ করে বলেন, প্রবাসী শ্রমিকদের পরিবারের জন্য সুরক্ষার আওতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। যারা বিদেশে শ্রমিক পাঠাবেন তাদের কমপ্লায়েন্সের আওতায় আনা প্রয়োজন।

[৮] আইএলও বাংলাদেশের মাইগ্রেশন প্রজেক্ট চিফ টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজার লেটেশিয়া ওয়েবেল রবার্টস বলেন, বিদেশ ফেরতদের নিয়ে সাসটেইনেবল রিইনটিগ্রেশন প্রকল্প হাতে নেওয়া হচ্ছে। যেসব প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে সেখানেও রিইনটিগ্রেশন প্রকল্পকে যুক্ত করা হবে। সম্পাদনা : রায়হান রাজীব

সর্বাধিক পঠিত