প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লক্ষ্মীপুরের রামগতি-কমলনগরে মেঘনার তান্ডব, কাঁচা সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ

জাহাঙ্গীর লিটন, লক্ষ্মীপুর: [২] জেলার রামগতি-কমলনগর সড়কের বেহাল অবস্থা, চলাচল দুর্ভোগে স্থানীয়রা। দীর্ঘদিন সড়কগুলো সংস্কার না হওয়ায় এবং সম্প্রতি মেঘনা নদীর অস্বাভাবিক জোয়ারের পানির তোড়ে রামগতি উপজেলার ২০ কি. মি. পাকা, ৬০ কি. মি. কাঁচা এবং কমলনগর উপজেলার ২০ কি. মি. পাকা ও ৬০ কি. মি. কাঁচা সড়কসহ দুই উপজেলায় প্রায় ৪০ কি. মি. পাকা এবং ১২০ কি. মি. কাঁচা সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

[৩] এছাড়াও কয়েকটি ব্রিজ-কালভার্ট বিধ্বস্ত হয়। রামগতি-আলেকজান্ডার সড়কের মালি বাড়ি সংলগ্ন ব্রিজটির দুপাশের্^র মাটি ধসে সড়ক থেকে ব্রিজটি আলাদা হয়ে যায়, ফলে রামগতি-বিবির হাটের যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এতে করে ব্রিজটি এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। এলজিইডির উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবদুর রহিম জানান, ক্ষতিগ্রস্ত পাকা সড়কগুলো এবং কয়েকটি ব্রিজ-কালভার্ট জরুরি ভিত্তিতে সংস্কারের জন্য উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মোমিন বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক করতে সংশ্লিষ্ট দফতরগুলোকে ক্ষতিগ্রস্থ ব্রিজ-কালভার্ট ও সড়কগুলো দ্রুত সংস্কার করতে বলা হয়েছে।

[৪] রামগতি-আলেকজান্ডার বেশ কিছু আঞ্চলিক সড়কের বেহাল অবস্থা, যানবাহন চলাচল তো দূরের কথা, হাঁটা-চলাই কঠিন হয়ে পড়েছে। সড়কগুলোর মধ্যে চর গোসাই রোড, বিবির হাট রোড, দরবার রোড, মেল্লা রোড, মধ্য চর আলগী রোড, চর টবগী রোড, রহমত সুয়া রোড, রব রোডসহ বেশ কিছু সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

[৫] অন্যদিকে কমলনগর উপজেলার প্রায় ২০ কি. মি. পাকা এবং ৬০ কি. মি. কাঁচা সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। কমলনগর উপজেলার এলজিইডি উপ-সহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ আহাম্মদ জানান উপজেলার ২০ কি.মি. পাকা সড়ক এবং ৪টি কালভার্ট ক্ষতিগ্রস্থ হয়। সবচেয়ে বড় ক্ষতিগ্রস্থ সড়কগুলির মধ্যে তোরাবগঞ্জ-মতিরহাট, করইতোলা সড়ক, হাজী কাদির পন্ডিতের হাট সড়ক, হাজীর হাট-পাটওয়ারীর হাট সড়ক বেশি ক্ষতি গ্রস্থ হয়।

[৬] কমলনগর উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা জানান তার উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নে ৬০ কি. মি. রাস্তা এবং ৭টি ব্রিজ-কালভার্ট মানুষের চলাচলের অনুপোযগি হয়ে পড়েছে। তারমধ্যে চরফলকন, চর মার্টিন, চর কালকিনি, চল লরেঞ্চ, সাহেবের হাট, পাটওয়ারীর হাট এর সড়কের অবস্থা খুবই নাজুক। ক্ষতিগ্রস্থ ও চলাচলের অযোগ্য সড়ক ও ব্রিজ-কালভার্টগুলো দ্রুত মেরামতের মাধ্যমে রামগতি ও কমলনগর উপজেলায় যান চলাচলের উপযোগী করে তোলার দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

[৭] লক্ষ্মীপুর-৪ রামগতি আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অব.) আবদুল মন্নান সাংবাদিকদের জানান, রামগতি ও কমলনগরের সড়কগুলো যান চলাচলের উপযোগী করতে তিনি উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছেন এবং বরাদ্দ পেলে অতি শীঘ্রই কাজ শুরু করা হবে বলে তিনি জানান।

[৮] স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় এবং সম্প্রতি জোয়ারের পানির তোড়ে রামগতি ও কমলনগর উপজেলার পাকা সড়কগুলো ভেঙ্গে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। পাকা সড়কগুলোর বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং ও খোয়া উঠে যাওয়ায় যান চলাচল অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে লক্ষ্মীপুর জেলা শহরের সাথে রামগতি-কমলনগর দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের যোগযোগ ব্যবস্থার অবনতি ঘটেছে। এতে চরম দুর্ভোগে রয়েছে সাধারণ জনগন। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত