প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কোভিড রোগী আকাশপথে বহনের ক্ষেত্রে সরকারের কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই : শাহজালাল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ

লাইজুল ইসলাম : [২] সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্স, ফ্লাই দুবাই ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে চরে কোভিড-১৯ সংক্রমিত যাত্রী দেশে এসেছেন। এই তথ্য হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বন্দরকর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। সংশ্লীষ্ট বিমান সংস্থাগুলোর ওপর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলে স্বাস্থ্য বিভাগ। এই বিষয়টি জানাজানি হলে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পরে।

[৩] ১৫ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ৭ জন আনার অভিযোগ উঠেছে ৩ এয়ারলাইন্সের বিরুদ্ধে। ১৪ সেপ্টেম্বর সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের এসভি ৩৮০৪ ফ্লাইটে রিয়াদ থেকে আসা একজন করোনা পজিটিভ যাত্রী পাওয়া যায়। ৩ সেপ্টেম্বর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি ৪০৫০ ফ্লাইটে সৌদি আরব থেকে আসা করোনা পজিটিভ যাত্রী পাওয়া যায়। এছাড়া সৌদি আরব থেকে ২৬ আগস্ট সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের এসভি ৩৮০৬ ফ্লাইটে একজন, ২২ আগস্ট এসভি ৩৮০৮ ফ্লাইটে একজন করোনা পজিটিভ যাত্রী আসেন। ২০ আগস্ট দুবাই থেকে দুবাইয়ের এফজেড ৫৮৩ তে একজন এবং ১৬ আগস্ট বিমান বাংলাদেশে এয়ারলাইন্সের বিজি ৪১২৬ ফ্লাইটে দোহা থেকে একজন করোনা পজিটিভ যাত্রী আসেন।

[৪] বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এএইচএম তৌহিদ উল আহসান বলেন, উড়োজাহাজ সংস্থাগুলোর কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিলো কিভাবে রোগীরা আসলো? উত্তরে উড়োজাহাজ কর্তৃপক্ষ বলেছে, যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে কোভিড নেগেটিভ সনদ বাদ্ধতামূলক করেনি বাংলাদেশ সরকার। সেজন্য করোনা টেস্ট সনদ চেক করে না তারা।

[৫] তৌহিদ উল আহসান বলেছেন, কোভিড অতিমারির শুরুর দিকে উড়োজাহাজ সংস্থাগুলোকে সতর্ক করা হয়েছিলো। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো নিষেধাজ্ঞা দেয়নি সরকার। তারপরও উড়োজাহাজ সংস্থাগুলো জানলে হয়তো তাদের বহন করতো না।

[৬] হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ শাহরিয়ার সাজ্জাদ বলেন, উড়োজাহাজগুলোতে দেশে ফেরা এই রোগীদের কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তী করা হয়েছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত