প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নাদিয়া শারমীন: ভাষাবৈচিত্রে অনন্য বাংলাদেশ

নাদিয়া শারমীন: চিটাগাং গিয়েছি … শুটকি কিনব বলে একটা দোকানে যেয়ে জিজ্ঞেস করলাম;
“এটার দাম কতো?’
‘সাসশো’
“কতো … সাতশো ??”
‘উহু … একদাম সাসশো’
“কতো? চারশো??”
‘‘বাই সিম্পল খতা বুজেন না? খাগজ খলম এনে লিকে দিতে হবে নাকি যে?’
… ইচ্ছে হচ্ছিলো, শুটকি রেখে এই কিউট বান্দাটারে কোলে করে ঢাকা নিয়ে আসি
শুধু চিটাগাং না… বাংলাদেশের যে প্রান্তেই যান; একবার তো সিলেটে যেয়ে একজন আমাকে বলছে, “আফনারে আমি বালাফাই… অন্য কেউরর লগে মাততাম ফারিনা”
… বুঝলাম না, প্রথম পরিচয়েই মাতামাতির কি আছে ।
দিনাজপুরের লোক, অপরিচিতদের তুই করে বলে… কিন্তু বাক্যের শেষে যেয়ে আপনিতে ফিরে আসে
“কিরে তুই হামার বাড়িত আইসলেন না”
ময়মনসিংহের মানুষ তো কথায় কথায় ইংলিশ বলে; “বাড়িত গেস লাইন??”
অন্য কেউ হয়ত হুট করে শুনলে ভাব্বে তার বাসার Gas line নিয়ে কোন প্রশ্ন করা হচ্ছে
কিন্তু আদতে জিজ্ঞেস করা হচ্ছে ‘বাড়ি গিয়েছিলেন?’
একবার ‘ইঞ্জেকশান ভয় পায়’ এমন কিশোরগঞ্জের একজনকে জোরপূর্বক ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়া হলো;
ডাক্তারঃ আপনার সমস্যা কি?
রোগীঃ মাতা বেদ্‌না। এইবাই বালা ঐয়া যায়াম, ইঞ্জিশন লাকতো না
ডাক্তারঃ আর কোন সমস্যা?
রোগীঃ শইল্ল জ্বর। বরি খাইলেই বালা অইয়া যায়াম, ইঞ্জিশন লাকতো না
ডাক্তারঃ বাথরুম ঠিকমত হয়? বেশী নরম না তো?
রোগীঃ অয় মানে, কি কইন ?!! মিল্লা মারলে আইন্নের কফাল ফাইট্টা যাইবো … এরুম শক্ত ! ইঞ্জিশন লাকতো না।
নোয়াখালীর মানুষ নিয়ে কথা বলা শুরু করলে লেখা শেষ করা যাবে না… সামান্য পানি, তাদের কাছে honey ।
মনে আছে কয়েকদিন আগে বরিশালের লঞ্চের ডাইনিং রুমে এক ওয়েটারকে বললাম, “তরকারী এনে দেন তো এক বাটি”
সে উত্তর দিলো, ‘ট্যাংগা শালুনের হুররা চুক্কা’
আমি মুখ চোখা করে কিছুক্ষণ তাকিয়ে রইলাম তার দিকে… মনে মনে ভাবছি এটা কি কোড ল্যাংগুয়েজ? আলফা রোমিও টেঙ্গ টাইপ?
পরে শুনলাম তারা তেতুলকে বলে ট্যাংগা, তরকারির ঝোলকে বলে শালুনের হুররা আর টককে বলে চুক্কা
গতকাল হোম পেইজে দেখলাম UNESCO has declared the Bengali language to be the sweetest language of the world.
আসলেই ব্যাপারটা সঠিক নাকি জানি না… না সঠিক না হওয়ার কোনও কারণ অবশ্য নেই শুধু দেশের মাটিতে না, বিদেশের মাটিতেও আমরা এটা ধরে রাখতে পেরেছি। কয়েকদিন আগে ইংল্যান্ডে এক বাসায় দাওয়াত খেতে গেলাম… তারা সিলেটি। সেই বাসার পিচ্চি বাচ্চার জন্য আমি কিছু প্ল্যাস্টিকের তেলাপোকা নিয়ে গেলাম। সে সেটা দেখেই বলে উঠলো, “আই এম স্কেএএআর্ড”
আমি তার প্রনাউন্সিয়েশান শুনে মুগ্ধ… একদম ব্রিটিশ টান। আমি আবার তার প্রনাউন্সিয়েশান শুনার জন্য ওকে তেলাপোকা গুলো দেখালাম
সে আবার বলে উঠলো, “আই এম স্কেএএআর্ড… আমি বুইফাই।” সংগৃহীত
ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত