প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুনমুন শারমিন শামস্: ভাদ্র মাসের গরমে চোখ মুখ কান মাথা শরীর ঢাইকা রাখাকে ফেমিনিজম সমর্থন করে না

মুনমুন শারমিন শামস্: ইস্তানবুলে গেছিলাম। একটা নদীতে গেছি। মানে জাহাজে কইরা সারাদিন ঘুরা, ডিনার করা এরপর ফেরা। তো সেই জাহাজে ঐতিহ্যবাহী বেলিডান্স আছে। অপূর্ব সুন্দর ডান্সাররা নাচতেসেন। এক টার্কিশ ভদ্রলোক গেছেন উনার বউরে নিয়া। বউয়ের সর্বাঙ্গ বোরখায় ঢাকা। হাত মোজা পা মোজা। ভ্রুও ঢাকা। চোখ দুইটা কোনমতে বের হয়ে আছে। উনারা আমাদের টেবিলের উল্টাদিকেই একটা টেবিলে বসছেন। ডিনারের সময় আমি কায়দা করে দেখার চেষ্টা করলাম মেয়েটা ক্যামনে খায়। দেখলাম, উনি নেকাবটা নিচের দিক দিয়ে সামান্য তুলতেসেন, এবং চামচে কইরা তার তলা দিয়েই খাবারটা পাস করতেসেন মুখে। তো, উনি বহুক্ষণ সময় নিয়ে খাচ্ছেন। এর ফাঁকে উনার হাসব্যান্ডরে দেখলাম ওয়াইনের গেলাস হাতে বেলি ডেন্সারের দিকে চইলা গেলেন, খুব কাছ থিকে দাঁড়ায়ে দাঁড়ায়ে নৃত্য ভোগ করতে লাগলেন। ততোক্ষণে উনার বউ বোরখার তলা দিয়া খাওয়ার সংগ্রাম চালায়ে যাচ্ছেন। কোকের বোতলটাও বোরখার নিচে ঢুকায়ে দিলেন। এই মেয়েটাকে যদি আপনারা বলেন, ব্যক্তিস্বাধীনতায় বোরখা পরসে, সে আপনারা বলতে পারেন। ঠিক যেরকম সেদিন দেখলাম ক্লাস টু এর বাচ্চা হিজাব পরতেসে।

সেইটাও তো ব্যক্তিস্বাধীনতাই, নাকি? যদিও ৬-৭ বছরে কেউ ব্যক্তিস্বাধীনতা, ধর্ম, রিচুয়াল বুঝে কিনা, আমি সেটাও আপনাদের কাছেই জানতে চাই। হিজাব, বোরখা নিয়া কিছু বললে, দ্রুত লেখা শেয়ার হইতে থাকে, সাথে প্রচুর গালিগালাজ, ঘেন্না। এদের বেশিরভাগই লেখার মূল অর্থের ধারেকাছেও যাইতে পারে না। সেই ঘিলুই তৈরি হয় নাই। হ্যাঁ, ফেমিনিজম নারীর সর্বাত্মক স্বাধীনতার কথা বলে। নারীর সুস্থতা এবং মবিলিটির কথা বলে। ভাদ্র মাসের গরমে চোখ মুখ কান মাথা শরীর ঢাইকা রাখাকে ফেমিনিজম সমর্থন করে না। নারীর শরীরকে অপবিত্র জ্ঞানে অতিরিক্ত কাপড় দিয়া ঢেকে খাবার সমতুল্য করে রাখাকে সমর্থন করে না। এইগুলাই ফেমিনিজমের কথা। আপনাদের ভাল না লাগলেও এটাই সত্য। আমারে গালি দিয়া লাভ নাই। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত