প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সবুজবাগে সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে কিশোর জব্বার হত্যায় কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ

ইসমাঈল ইমু : [৩] স্থানীয়দের অভিযোগ, মারামারির এক পর্যায়ে জব্বার নামে ওই কিশোর খুন হয়। এ ঘটনার নিহতের বড়ভাই বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছে। পুলিশ বলছে, আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

[৩] গত সোমবার রাত ১০ টার দিকে সবুজবাগের রাজারবাগ কারখানায় প্রিন্টিংয়ের কাজ সেরে বাসার সামনে যায় জব্বার। প্রথমে ইমনের সাথে তর্কাতর্কি, এরপর ঘটনাস্থলে আসে ইমনের ভাই ইয়াসিন। একপর্যায়ে ইয়াসিন, পকেট থেকে ছুরি বের করে আঘাত করে জব্বারকে।

[৪] ঘটনার একদিন পর গত মঙ্গলবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় জব্বার। পরিবারের অভিযোগ ইয়াসিন এবং ইমন মারামারির এ পর্যায়েও হত্যা করে জব্বারকে। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তারা। এলাকায় বখাটে হিসেবে পরিচিত ইয়াসিন এবং ইমন। তারা ভাঙাড়ির দোকানে কাজ করে।

[৫] সবুজবাগ থানার ওসি মাহবুব আলম বলেন, ঘটনাস্থল থেকে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে অপরাধী শনাক্ত করা হয়েছে। শিগগিরই তারা ধরা পড়বে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত