প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বিশ্বজুড়ে বন্ধু তৈরিতে নিজেদের ভ্যাকসিন ব্যবহার করছে চীন, বাংলাদেশ বিনামূল্যে পাবে ১ লাখ ১০ হাজার ডোজ

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২] নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, ইতিহাসে কখনও এভাবে যেচে গিয়ে কোনও দেশ আরেক দেশকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেয়নি। ফিলিপাইনকে দ্রুততার ভিত্তিতে দেয়া হবে চীনের তৈরি কোভিড ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিন কিনতে লাতিন আমেরিকার দেশগুলো পাবে ১০০ কোটি ডলার ঋণ। নিউ ইয়র্ক টাইমস

[৩] চীনের এখনও বড় পরিসরে ভ্যাকসিন তৈরিতে মাসখানেক সময় লাগতে পারে। কিন্তু চীন এক অদ্ভূত নীতি হাতে নিয়েছে। তাদের করোনা যখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে, তখন তারা বন্ধু ও সম্ভাব্য বন্ধুদের আগে ভ্যাকসিন দিতে চায়। ভারতের সঙ্গে যখন সংঘাত আসন্ন, তখন তারা বাংলাদেশকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে বলে নিউ ইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে।

[৪] ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কন্নয়নে এই ভ্যাকসিনকেই ব্যবহার করতে চাচ্ছে বেইজিং। এই ব্যাপারে গত সপ্তাহে ফোন করে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিং পিং ইন্দোনেশিয়ান কাউন্টারপার্ট জোকো উইদাদোকে আস্বস্তও করেছেন।

[৫] করোনা মহামারীর সময় সারা বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে ব্যর্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর সুযোগ চীন খুব ভালোভাবেই নিয়েছে। নিজেরা দ্রুত সেরে উঠায় সারা বিশ্বে মাস্ক ও পিপিই পাঠিয়েছিলো তারা। নিবিড় বন্ধুদেশগুলোতে পাঠিয়েছিলো চিকিৎসক। নিজেদের বিপদের সময় চীন কাউকে পাশে পায়নি। এর প্রতিশোধ না নিয়ে উল্টো সহায়তা করে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন বেইজিং এর কূটনীতিকরা।

[৬] চীনে যখন মহামারী চলছিলো, তখন শুধু বাংলাদেশ থেকে চীন পিপিই, মাস্ক ও স্যানিটাইজার পেয়েছিলো বড় পরিসরে। আরও কিছু দেশ সামান্য পরিমাণে সহায়তা করেছিলো। কিন্তু বিপদের সময় চীন যুক্তরাষ্ট্রে পর্যন্ত সহায়তা পাঠিয়েছে। নিজেদের কূটনীতির এই নতুন ধাপে স্বাভাবিকভাবেই এখন বাংলাদেশকে বিশেষ সুবিধা প্রদান করতে চাচ্ছে বেইজিং। সম্পাদনা: ইকবাল খান

সর্বাধিক পঠিত