প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘কর্পোরেট ফার্মিং’ করতে চীনের সহযোগিতা চায় পাকিস্তান

রাশিদ রিয়াজ : ৬১ বিলিয়ন ডলার খরচে যে চীন-পাকিস্তান ইকোনোমিক করিডর হচ্ছে সেখানেই বৃহদাকার কৃষি খামার গড়ে তুলতে চীনের শরণাপন্ন হয়েছে পাকিস্তান। ট্রিবিউন এক্সপ্রেস বলছে পাকিস্তানের মন্ত্রিসভা এধরনের কর্পোরেট ফার্মিংয়ের জন্যে পূর্ণ সমর্থন দিয়েছে। এমনকি যৌথ খামার গড়ে তুলতেও সহায়তা চেয়েছে বেইজিংয়ের কাছে ইসলামাবাদ। গত মার্চে চীন সফরের সময় পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আলভি দুটি দেশের মধ্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশেষ করে কৃষিখাতে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার জন্যে একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

পাকিস্তানে কর্পোরেট ফার্মিংয়ের ক্ষেত্রে বিশেষ করে গমের আবাদ করতে ইচ্ছুক ইসলামাবাদ। ভাল গমবীজের অভাব দূর করে এবং দেশটির বাজারে গমের চাহিদার যোগান পর্যাপ্ত করতে এধরনের বৃহদাকার খামারে গম উৎপাদন ব্যাপক করার দিকে নজর দিতে চাচ্ছে পাকিস্তান। কারণ রুটি পাকিস্তানে প্রধান খাদ্যগুলোর একটি। এখনো গম আমদানি করে পাকিস্তান।

একই সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদে পাকিস্তান খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চীনের সহায়তায় কৃষি আবাদে প্রযুক্তি ও পুঁজির ব্যবহার করতে চাচ্ছে। চীন পাকিস্তানের বড় বাণিজ্যিক অংশীদার এবং কর্পোরেট ফার্র্মিংয়ে অন্তত ৭ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান ঘটিয়ে জিডিপি’তে আড়াই শতাংশ অবদান যোগ করতে চাচ্ছে ইসলামাবাদ। এধরনের প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে চীনের সঙ্গে মধ্যএশিয়ার যে বাজারের সংযোগ রয়েছে তা ধরতে চায় পাকিস্তান। আগামী ১৫ বছরের মধ্যে পাকিস্তানের গধার বন্দর থেকে চীনের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল এলাকা জিনঝিয়াংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ চালু হবে। চীনের কাশগড় থেকে গধার বন্দরের মধ্যবর্তী দূরত্ব হচ্ছে ২৭’শ কিলোমিটার এবং এ মহাসড়কের সঙ্গে রেলপথে মালামাল পরিবহন ও তেল-গ্যাস পাইপলাইন সংযুক্ত থাকবে। সংযোগ থাকবে ফাইবার-অপটিক লিংক।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত