প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] অক্সফোর্ডের তৈরি ‘চ্যাডক্স-১’কে বলা হচ্ছে গরীবের ভ্যাকসিন

শিমুল মাহমুদ: [২] নভেল করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে চিকিৎসার ওপরে ভরসা না করে প্রতিষেধক ভ্যাকসিনের ওপর জোর দেওয়ার বিষয়ে অধিকাংশ বিজ্ঞানী একমত। তবে এই ভ্যাকসিন কতটা সাধারণদের হাতের নাগালে আসবে তা নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা। নিউজ২৪

[৩] চীনের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি সিনোফার্ম বলেছে, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে তাদের কোভিড-১৯ টিকা বাজারে আসবে। তবে এ টিকার দাম সম্ভাব্য অন্য করোনাভাইরাসের টিকার চেয়ে অনেক বেশি। প্রতিষ্ঠানটির তৈরি প্রতি ডোজ টিকার দাম পড়তে পারে ৭৩ ডলারের মতো। বাংলাদেশি টাকায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ৬ হাজার টাকা।

[৪] এদিকে ভ্যাকসিন তৈরির ক্ষেত্রে অনেক এগিয়ে অক্সফোর্ড। ভ্যাকসিন জোটের সাথে চুক্তি করেছে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া। আর একেই বলা হচ্ছে গরীবের ভ্যাকসিন। অক্সফোর্ডের এই ভ্যাকসিনের প্রতিটি ডোজের দাম হতে পারে ৩ ডলার, অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় মাত্র ২২৫ টাকা। ভারত ছাড়াও বিশ্বের আরও ৯২টি দেশে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব নিয়েছে সিরাম।

[৫] মার্কিন ঔষধ কোম্পানি মডার্নাও করোনা ভাইরাসের কার্যকরি ভ্যাকসিন তৈরিতে এগিয়ে আছে। এর তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা চলছে। সেপ্টেম্বর মাসেই এর ট্রায়াল শেষ হতে চলেছে। এ বছরের শেষ নাগাদ এটি উৎপাদনে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এর দাম হতে পারে বাংলাদেশি ২ হাজার টাকার মতো।

[৬] রাশিয়ার ভ্যাকসিন বাজারে দ্রুত আসার সম্ভাবনা থাকলেও এই ভ্যাকসিনের দাম কত হতে পারে সে ব্যাপারে তথ্য দেয়নি পুতিন। এমনকি এই ভ্যাকসিনের গ্রহনযোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত