প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৩ শর্তে প্রত্যাহার হতে পারে মিশার বয়কট

ইমরুল শাহেদ : চলচ্চিত্রের ১৮ সংগঠনের কাছে বয়কট প্রত্যাহার চেয়ে খ্যাতিমান অভিনেতা মিশা সওদাগর যে আবেদন করেছিলেন, তার প্রেক্ষিতে গত শনিবার বিকেলে এফডিসির প্রযোজক পরিবেশক সমিতিতে নেতৃত্বদানকারীদের এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

সে সময় ১৮ সংগঠনের নেতারা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মিশা সওদাগর। দীর্ঘ আলাপ-আলোচনার পর পরিস্থিতির আলোকে যে তিনটি শর্ত মিশা সওদাগরকে মানতে বলা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে – ক) প্রযোজক পরিবেশক সমিতি সকল সংগঠনকে নিয়ে শুটিংসহ আর্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে যে নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে তা মেনে শিল্পী ও কুশলীদের শুটিংয়ে অংশগ্রহণ করতে হবে।

খ) শিল্পী সমিতি থেকে যে ১৮৪ জন শিল্পীর সদস্যপদ বাতিল করা হয়েছে, তাদের সদস্য পদ ফিরিয়ে করতে হবে। গ) নীতিমালা না মানার জন্য শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক যে এসএমএস পাঠিয়েছে, তার বিপরীতে সভাপতি হিসেবে মিশা সওদাগরকে ১৮ সংগঠন যে নীতিমালা প্রণয়ন করেছে, তা মেনে কাজ করার জন্য এসএমএস পাঠাতে হবে।

প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘যদিও মিশা সওদাগর আমাদের আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন, তারপরও তাকে আমরা লিখিতভাবে জানাবো। এই তিনটি শর্ত তিনি মেনে চললেই আমরা তার বয়কট প্রত্যাহারের বিষয়টি অবশ্যই বিবেচনা করব।’ পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘মিশা সওদাগরের বয়কট প্রত্যাহার হতেই পারে।

কারণ অপরাধ অনেকটাই গৌণ।’ খোরশেদ আলম খসরু জানান, ইতোমধ্যে মিশা সওদাগরকে ছবিতে রেখে প্রযোজক পরিবেশক সমিতির অনুমোনের দুই জন প্রযোজক আবেদন করেছিলেন। মিশা সওদাগরকে বাদ দিয়ে ছবি দুটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে একটি ছবির শুটিংও শুরু হয়ে গেছে। তিনি বলেছেন, আরো দুটি ছবি জায়েদ খানকে নায়ক করে অনুমোদনের আবেদন করেছিল। সে দুটি ছবি থেকে জায়েদ খানকে বাদ দিয়ে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘জায়েদ খানকে পদত্যাগ করতেই হবে। এর কোনো বিকল্প নেই।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত