প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৬৫ বিলিয়ন ডলারের গ্যাস মজুদ পেল তুরস্ক, গ্রিস, সাইপাস ও ফ্রান্সের সঙ্গে মতবিরোধ

রাশিদ রিয়াজ : কৃষ্ণ সাগরে ৩২০ বিলিয়ন ঘনমিটার গ্যাসের মজুদ পাওয়ার পর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিচেপ তাইয়্যেপ এরদোগান বলেছেন এটি আসলে বড় একটি গ্যাসে মজুদের অংশ এবং মূল গ্যাস ক্ষেত্রটি ২০২৩ সাল নাগাদ আবিস্কার হতে পারে। গত তিন থেকে চার বছরের গ্যাস মূল্য বিবেচনায় এ গ্যাসের মূল্যায়ন সাড়ে ৬ হাজার কোটি ডলার। সাবা

তুরস্কের গ্যাস ও তেল অনুসন্ধানকারি জাহাজ ফেইথ টুনা-১ গত ২০ জুলাই কৃষ্ণ সাগরে অনুসন্ধান শুরুর পর একমাসের মাথায় এ গ্যাসের সন্ধান পায়। তুরস্ক জালানি চাহিদার ৯৯ শতাংশই রাশিয়া, ইরান ও আজারবাইজান থেকে আমদানি করে থাকে। গত বছর তুরস্ক ১২ বিলিয়ন ডলারের গ্যাস আমদানি করে। গ্যাসের মূল্য বেড়ে যাওয়ায় তুরস্ককে এজন্যে বড় ধরনের ঘাটতি পরিশোধ করতে হয়। এখন গ্যাসের সন্ধান পাওয়ায় বছরে ৩ বিলিয়ন ডলারের বাজেট ঘাটতি হ্রাস পাবে। প্রাপ্ত গ্যাস তুরস্কের অভ্যন্তরীণ চাহিদার ২০ গুণ বেশি।

গ্যাস পাওয়ার পর তুরস্কের স্থানীয় মুদ্রা লিরারা ডলারের বিপরীতে ১.২ শতাংশ দাম বেড়ে গেছে। বেঞ্চমার্ক বোরসা ইস্তাম্বুল সূচকের উত্থান হয়েছে ৩ শতাংশ। এদিকে ভূমধ্যসাগরে বিতর্কিত এলাকায় তুরস্কের তেল-গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রমের ফলে গ্রিস ও পুরো ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে তুরস্কের উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। রাজধানী আঙ্কারায় একটি সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় এরদোগান ঘোষণা তেল-গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রমের অধিকার থেকে তুরস্ককে কেউ বঞ্চিত করতে পারবে না।
এরদোগান বলেন, তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ইস্যুতে আমরা শতভাগ সঠিক অবস্থানে আছি। জলদস্যুদের কাছে আত্মসমর্পণ করলে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে আমরা মুখ দেখাতে পারব না। আমরা উপনিবেশবাদীদের বক্তৃতা শুনতে চাই না বরং আমরা শেষ পর্যন্ত আমাদের অধিকার রক্ষার লড়াই করব। উপনিবেশবাদী বলতে তিনি দৃশ্যত ফ্রান্সকে বুঝিয়েছেন।

পূর্ব ভূমধ্যসাগরে এলাকায় তেল-গ্যাস অনুসন্ধান এবং উপকূলীয় এলাকা নিয়ে গ্রিস এবং সাইপ্রাসের সঙ্গে তুরস্ক দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়ার পর গ্রিস ও সাইপ্রাসের পক্ষে প্রকাশ্য অবস্থান নিয়েছে ফ্রান্স। ওই এলাকায় তুরস্ককে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান না করার আহ্বান জানিয়ে ফ্রান্স ভূমধ্যসাগরে সামরিক উপস্থিতি বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে।

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত