প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পঞ্চগড়ে বাঘ ধরতে কাটা হচ্ছে পরিত্যক্ত চা বাগান ও জঙ্গল

তরিকুল ইসলাম :[২] পঞ্চগড় জেলাধীন সদর উপজেলার সাতমেড়া ইউনিয়নের মুহুরীজোত ও সাহেবীজোত এলাকায় বাঘের হামলার ঘটনার পর স্থানীয়দের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে সেই দুই বাচ্চাকে নিয়ে একটি চিতাবাঘ ধরতে তৎপর হয়ে হঠেছে প্রশাসন ও বন বিভাগ। ইতোমধ্যে শিকার করতে প্রস্তুত করা হয়েছে খাঁচা।

[৩] অন্যদিকে প্রায় চার একর জমির ওপর গড়ে ওঠা জঙ্গলাকীর্ণ পরিত্যক্ত সেই চা বাগান স্থানীয়দের সহযোগিতায় পরিষ্কার করছে প্রশাসন।

[৪] শুক্রবার সকাল থেকে মুহুরীজোত গ্রামের সেই জঙ্গলাকীর্ণ পরিত্যক্ত চা বাগানের আশপাশ ঘুরে দেখা যায় এমন চিত্র।

[৫] এতে সাতমেরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান জানান, পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফ হোসেন ও তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহাগ চন্দ্র সাহা, সদর ও তেঁতুলিয়া থানার ওসি আবু আককাছ আহমেদ ও মো. জহুরুল ইসলামসহ বন বিভাগের লোকজন এসে ওই চা বাগান ও জঙ্গল কাটার নির্দেশনা দেন।

[৬] তাদের নির্দেশনাড ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মো. মিন্টু কামাল ১৯ জন শ্রমিক দিয়ে পরিষ্কার কাজে লাগিয়েছেন। চা বাগান ও জঙ্গলটি খুবই ঘন হওয়ায় কাটতে সময় লাগছে। কবে নাগাদ কাটা শেষ হবে এটা বলা কঠিন।

[৭] সাতমেরা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মো. মিন্টু কামাল জানান, বাঘের আতঙ্কে আমার এলাকার লোকজন রাত জেগে পাহারা দিয়ে আসছেন। বাঘ ধরতে অভিযানের অংশ হিসেবে এই চা বাগান ও জঙ্গল কাটা শুরু হয়েছে।

[৮] তিনি আরও জানান, তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার ও তার স্ত্রীর বড় ভাই রমজান আলীর সঙ্গে ওই চা বাগান নিয়ে ৭/৮ বছর ধরে আদালতে মামলা চলমান আছে। এ কারণে চা বাগান থেকে পাতা উত্তোলন না হওয়াসহ পরিচর্যা না করায় চা বাগানটি জঙ্গলে পরিণত হয়েছে। চা বাগানের দুই পক্ষের সম্মতিক্রমে প্রশাসনের নির্দেশে এটি কাটা হচ্ছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

[৯] ভারত থেকে আসা দুই বাচ্চাকে নিয়ে একটি চিতাবাঘ গত একমাস থেকে পঞ্চগড় সদর উপজেলার সাতমেরা ইউনিয়নের ওই চা বাগান ও জঙ্গলে অবস্থান করে আশপাশ এলাকার গরু-ছাগলের ওপর আক্রমণ করে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত