প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কুয়েত সরকার আগামী নভেম্বরের পর বেতন দিতে পারবে না

রাশিদ রিয়াজ : মধ্যপ্রাচ্যের তেল সমৃদ্ধ দেশ কুয়েত সরকারি চাকুরেদের বেতন দিতে পারবে না নগদ তহবিলের অভাবে। দেশটির অর্থমন্ত্রী বারাক আল-শিতান পার্লামেন্টে এ সংকটের কথা জানিয়ে দিয়েছেন। ব্লুমবার্গ বলছে বারাক এও জানিয়েছেন তার সরকার দেশটির সাধারণ মুদ্রা মজুদ থেকে কোভিড মহামারী শুরু হওয়ার পর প্রতিমাসে ১.৭ বিলিয়ন দিনার তুলে ব্যয় নির্বাহ করে আসছে।

কুয়েতের অর্থমন্ত্রী বলেছেন তেলের দর ও চাহিদা দুই বৃদ্ধি না পেলে কিংবা অভ্যন্তরীণ উৎস কিংবা বিদেশ থেকে ধার না করলে সরকার ব্যয় নির্বাহ করতে পারবে না। গত বছর কুয়েতের বাজেট ঘাটতি ছিল ৫.৬৪ বিলিয়ন দিনার বা ৬৯ শতাংশ। গত ৩১ মার্চ এ ঘাটতি আরো ১৪ বিলিয়ন দিনার বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন সরকারকে বেতন ও ভর্তুকি মেটাতে ব্যয়ের ৭৬ শতাংশ চলে যায়।

কুয়েতের অর্থমন্ত্রী বলেন স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী ঋণের অভাবে দেশটির নাগরিকদের ব্যয় হ্রাস আরো কঠোর করতে হবে।

আইএমএফ বলছে নগদ অর্থের যোগান দুর্বল হওয়ায় কুয়েত সরকারের আর্থিক প্রয়োজন আরো দ্রুত হারে বৃদ্ধি পাবে।

কুয়েতের একজন সংসদ সদস্য রিয়াদ আল-আদসানি বলেন অর্থমন্ত্রীর উচিত পদত্যাগ করা। কারণ তিনি কুয়েতের নাগরিকদের বেতন দিতে পারবেন না এমন শঙ্কা দেখিয়ে বরং হুমকি দিচ্ছেন। তিনি সংকট মোকাবেলায় দক্ষতার পরিচয় দিচ্ছেন না। তবে কুয়েতের অর্থনীতি বিপাকে পড়ার মূল কারণ তেলের দর পতন ও ওপেকের চুক্তি অনুসারে তেলের উৎপাদন হ্রাস করা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত