প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আনুষ্ঠানিকভাবে ডেমোক্রেট দলের ভাইস-প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনায়ন গ্রহণ করে ইতিহাস সৃষ্টি করলেন কমলা হ্যারিস

লিহান লিমা: [২] ভারতীয়-আফ্রিকান বংশোদ্ভুত, ক্যালিফোর্নিয়ার সিনেটর কমলা হ্যারিসকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভাইস-প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন দিয়েছে ডেমোক্রেট দলের তৃতীয় দিনের সম্মেলন। সম্মেলনের শুরুতেই ভিডিও বার্তায় জনগণকে ভোটের আহŸান জানিয়ে হ্যারিস বলেন, আমরা যখন ভোট দেবো সবকিছু পাল্টে যাবে। চলুন ভোট দেই। সিএনএন

[৩] মার্কিন বিপ্লবের স্মৃতি বিজড়িত ফিলাডেলফিয়ার জাদুঘর থেকে দেয়া ভাষণে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বার্তা দেন, তার উত্তরসূরী যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রের জন্য হুমকিস্বরুপ। ওবামা বলেন, ট্রাম্প প্রেসিডেন্সির জন্য পরিণত নন কারণ তিনি এটি পারেনই না। ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের জন্য ভুল প্রেসিডেন্ট। তিনি প্রেসিডেন্সিকে গুরুত্ব দেন না এবং ওভাল অফিসের গুরুত্ব বোঝেন ও না। মহামারীতে লাখ লাখ মানুষ চাকরি হারিয়েছেন, ১ লাখ ৭০ হাজারের বেশি প্রাণ হারিয়েছেন। আমাদের বৈশ্বিক সম্মান খর্ব হয়েছে এবং গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো হুমকির মুখে পড়েছে। আমাদের গণতন্ত্রের সুরক্ষা করতে হবে। জো বাইডেন এবং কমলা হ্যারিস জানেন কেউই আইনের উর্ধ্বে নয়। ’

[৪] প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ ও দক্ষিণ এশিয় নারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রধান দলের ভাইস- প্রেসিডেন্ট মনোনায়ন পাওয়া কমলা হ্যারিস নিজকে পরিচয় করিয়ে দেন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হিসেবে আসা ভারতীয় মা এবং জ্যামাইকান বাবার কৃষ্ণাঙ্গ সন্তান হিসেবে। কমলা বলেন, ‘আমাদের পদ্ধতিগত বর্ণবাদকে বিলোপ করতে হবে। এর কোনো টিকা নেই। এর জন্য কাজ করতে হবে। ট্রাম্পের নেতৃত্বের ব্যর্থতার কারণে অনেক জীবন গিয়েছে। আমরা জাতি হিসেবে শোকাহত। ’

[৫]সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ফাস্ট লেডি ও সিনেটর হিলারি ক্লিনটন বলেন, ‘যদি ট্রাম্প নিজের স্বার্থ এবং ইগোকে দূরে রাখতে পারতেন পরিস্থিতি ভিন্ন হতো। ডোনাল্ড ট্রাম্প যদি জানতেন কিভাবে প্রেসিডেন্ট হতে হয়। যুক্তরাষ্ট্রের এখন একজন প্রেসিডেন্ট প্রয়োজন। ট্রাম্প পুনরায় নির্বাচিত হলে পরিস্থিতি আরো খারাপ হবে। আমাদের জো বাইডেন ও কমালা হ্যারিসকে প্রয়োজন।’ এই সময় ২০১৬ সালের নির্বাচনে নিজের হারের কথা স্মরণ করে হিলারি বলেন, ‘মনে রাখবেন ৩০ লাখ পপুলার ভোট বেশি পাওয়ার পরও বাইডেন-কামালা হারতে পারেন। আমাদের এমন সংখ্যা প্রয়োজন যাতে ট্রাম্প বিজয়ের কাছে পৌঁছাতে না পারেন।’ হিলারি বলেন, ‘চার বছর ধরে আমাকে অনেকেই বলেছে তারা বুঝতে পারেন নি ট্রাম্প কতটা ভয়াবহ হবেন। তারা বলেছেন, আমাদের আপনাকে ভোট দেয়া উচিত ছিলো। আমি বলছি, এই নির্বাচন যেন উচিতের মধ্যে সীমাবদ্ধ না হয়।’

[৬]হাউসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেন, ‘আমরা ড্রিমার, এলজিবিটিকিউ’দের সমতা, বন্দুক সহিংসতা প্রতিরোধ এবং ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য পৃথিবীর সুরক্ষায় সিনেটে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক বিল পাঠিয়েছি। কিন্তু, সেটি কি এই আমেরিকায় সম্ভব? যেখানে মিচ ম্যাককলিন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প দাঁড়িয়ে আছেন।’ ন্যান্সি আরো বলেন, ‘স্পিকার হিসেবে আমি দেখেছি ট্রাম্প সত্যকে অসম্মান করেন, নারী এবং পরিবারগুলোকে অসম্মান করেন।’

[৭]ম্যাসাচুসেটসের সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন মার্কিন অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে জো এর পরিকল্পনাকে সমর্থন জানান।

[৮]নিউ মেক্সিকোর গর্ভনর মিশেল লুজান গ্রিসাম জলবায়ু পরিবর্তনের মতো ইস্যুকে গুরুত্ব না দেয়ায় ট্রাম্পের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা জানি পৃথিবীকে রক্ষার সময় পেরিয়ে যাচ্ছে। নভেম্বরের আমাদের কাছে দুইটি বর্তমান সংকট মোকাবেলা করার সুযোগ রয়েছে। প্রথমত, ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি, দ্বিতীয়ত, পরিবেশ ধ্বংস, যা ট্রাম্প শুরু করেছেন।’

[৯]গায়িকাও গীতিকাল বিলি এলিশ বলেন, ‘ট্রাম্প আমাদের দেশকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন। আমাদের এমন নেতা প্রয়োজন যিনি জলবায়ু পরিবর্তন ও কোভিডের মতো সমস্যার সমাধান করবেন, অবহেলা নয়। যিনি বর্ণবাদ ও অসমতার বিরুদ্ধে লড়বেন।’

[১০]কম বয়সে বাবা-মায়ের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে আসা ‘ড্রিমার’রা একযোগে বলেন, ‘আমাদের এমন একজন নেতা প্রয়োজন যিনি পরিবারগুলোকে এক করবেন।’

[১১]মার্কিন সংবাদ মাধ্যম এপি বলছে, পুরো সম্মেলনে ডেমোক্রেট দলের বার্তা হলো, ‘ট্রাম্পকে উৎখাত করতে হলে আপনাকে ভোট দিতে হবে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত