প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চীনা সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ নতুন স্পনসর ড্রিম ইলেভেনের,অস্বস্তিতে পড়বে বিসিসিআই

এল আর বাদল : [২] চীনা সংস্থা কিছুতেই বিসিসিআইয়ের পিছু ছাড়ছে না। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, আইপিএলের নতুন স্পনসর ড্রিম ইলেভেন এরও নাকি এক চীনা সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ আছে। বছর দুই আগে ওই চীনা সংস্থা ড্রিম ইলেভেনে মোটা অঙ্কের বিনিয়োগ করেছিল। যা রীতিমতো অস্বস্তিতে ফেলতে পারে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইকে।

[৩] ড্রিম ইলেভেন নামের এই ফ্যান্টাসি গেমিং অ্যাপটি ২০০৮ সালে তৈরি করেন ভবিত শেঠ এবং হর্ষ জৈন। এই মুহূর্তে দেশের সফলতম ফ্যান্টাসি গেমিং অ্যাপ এই ড্রিম ইলেভেন। ইতিমধ্যেই কমবেশি ৮ কোটি মানুষ এই অ্যাপটি ব্যবহার করছেন। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাদ্যমের দাবি অনুযায়ী, ২০১৮ সালে চীনের গেমিং সংস্থা টেনসেন্ট এই সংস্থাটিতে ১০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে।

[৪] তাৎপর্যপূর্ণভাবে সেবছরই ড্রিম ইলেভেনের বার্ষিক আয় একধাক্কায় বেড়ে যায় প্রায় ৩ গুণ। ওই বছরই টিম ইন্ডিয়ার সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি এবং আইসিসির সঙ্গে চুক্তি করে সংস্থাটি। বিগ ব্যাশ, প্রোকাবাডি, এবং আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশনের সঙ্গেও সে বছরই চুক্তি হয়। এবার, ২২২ কোটি টাকার বিনিময়ে এই অনলাইন গেমিং সংস্থাটি আইপিএলের মতো মেগা টুর্নামেন্টের টাইটেল স্পনসর হয়ে গেলো।

[৫] গত জুনে লাদাখ সীমান্তে ভারত – চীন সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি। চীনা সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে শহীদ হন ২০ জন ভারতীয় জওয়ান। তারপরই দেশজুড়ে চীনা পণ্য বয়কটের দাবি ওঠে। একগুচ্ছ চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে কেন্দ্র। এরপরই চীনা সংস্থা ভিভো এবছরের মতো আইপিএলের টাইটেল স্পনসরশিপ থেকে সরে দাঁড়ায়। কিন্তু ভিভোর বদলে নতুন যে স্পনসর এল, তাদেরও যোগাযোগ সেই চীনা সংস্থার সঙ্গেই। যা অস্বস্তিতে ফেলতে পারে বিসিসিআইকে। – আজকাল

সর্বাধিক পঠিত