প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যোগীর উত্তরপ্রদেশে ৪০ মাসে ৬২০০ এনকাউন্টার, মৃতদের ৩৭ শতাংশ মুসলিম

ডেস্ক রিপোর্ট : ভারতের উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথের নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার ২০১৭ সালের মার্চে ক্ষমতায় আসার পর থেকে কার্যত এনকাউন্টার প্রদেশে পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম। সম্প্রতি ডন বিকাশ দুবে এনকাউন্টার নিয়ে সারা দেশে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। প্রশ্নও উঠেছিল নানা স্তরে। এই পরিস্থিতিতে চমকে দেওয়ার মতো তথ্য প্রকাশ করলো ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো। তা হল ক্ষমতায় আসার পর থেকে যোগীর রাজে উত্তরপ্রদেশে মোট ৬২০০টি এনকাউন্টারের ঘটনা ঘটেছে। আর তাতে মৃত্যু হয়েছে মোট ১২৪ জনের!

যদিও সরকারি হিসেবে পরিসংখ্যানকে ইতিবাচক করেই দেখানো হয়েছে। তথ্য বলছে, ৬২০০টি এনকাউন্টারে ১৪ হাজারের বেশি অপরাধী গ্রেফতার হয়েছে। শুধু তাই নয়, ২৩০০ অপরাধী ও প্রায় ৯০০ পুলিশকর্মী আহত হয়েছেন।

তবে, এনকাউন্টারে মৃত্যুর পরিসংখ্যান রীতিমতো চমকে দেওয়ার মতো। ১২৪ মৃতের মধ্যে জাতিগত ভিত্তিতে মুসলিম ছিলেন ৪৭ জন, ব্রাহ্মণ ছিলেন একজন, যাদব সম্প্রদায়ের ৮ জন আর বাকি ৫৮ জনই ঠাকুর ও দলিত সম্প্রদায়ের। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, এই এনকাউন্টারের সিংহভাগই ঘটেছে পশ্চিম উত্তরপ্রদেশে। মেরঠে এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়েছে ১৪ জনের, উত্তপ্ত মুজাফফরনগরে ১১, সাহারানপুরে ৯ জন, অপরদিকে পূর্বের আজমগড়ে মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের। উত্তরপ্রদেশে সংখ্যালঘুদের বেছে বেছে এনকাউন্টার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে আগেও। আদালতেও এ নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসনকে। সেইসঙ্গে এই এনকাউন্টার গুলিতে মৃত্যু হয়েছে ১৩ জন পুলিশকর্মীরও।

এত কেন এনকাউন্টার হচ্ছে এমন প্রশ্নের উত্তরে উত্তরপ্রদেশের এডিজি আইনশৃঙ্খলা প্রশান্ত কুমার জানান, ‘দুষ্কৃতী দমনে আমরা জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছি। কাউকে ছাড়া হবে না।’

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানায়,এই ‘এনকাউন্টার রীতি’-এর কারণে একটা সময় ১২ হাজার দুষ্কৃতী জামিন নিতে অস্বীকার করেছিলেন। অনেকেই সরাসরি আদালতে গিয়ে আত্মসমর্পণ করেন। শুধু পুলিশ নয়, স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের অভিযানেও আরও ৯ দুর্বৃত্ত নিহত হয়েছিলেন মাত্র কয়েক মাসের মধ্যে। রাজনৈতিক পালাবদলের পর যোগী আদিত্যনাথ মুখ্যমন্ত্রী হয়েই পুলিশকে ‘অসীম’ স্বাধীনতা দেন।

যদিও ভারতীয় গণমাধ্যম জানাচ্ছে এত এনকাউন্টার সত্ত্বেও রাজ্যে শান্তিশৃঙ্খলা কিন্তু বজায় রাখতে ব্যর্থ হচ্ছেন যোগী আদিত্যনাথ। খুন, ধর্ষণ-সহ একাধিক ঘটনায় প্রায় প্রতিদিনই শিরোনামে আসছে উত্তরপ্রদেশ।

সূত্রঃ- এই সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত