প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বরগুনার আমতলীতে জমিজমা বিরোধে উভয় পক্ষের মহিলাসহ আহত ২০

জিয়া উদ্দিন, আমতলী প্রতিনিধি : [২] বরগুনার আমতলী সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ নাচনাপাড়া গ্রামে জমিজমা নিয়ে বিরোধে মহিলাসহ উভয় পক্ষের ২০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুত্বর আহত ১০ জনকে পটুয়াখালী ও বরিশাল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

[৩] স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, ওই গ্রামের বাসিন্ধা হাতেম আলী আকনের পুত্র ফকু আকনের সাথে একই বংশের চাচাতো ভাই ইয়াসিন আকনের পুত্র ইউসুফ আকনের ১০ বিঘা জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ জমি জমি চাষাবাদকে কেন্দ্র করে রোববাবর (১৬ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এর পর্যায়ে লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ ঘটনায় ফকু আকন (৬০), সোনা আকন (৫০), রাবিকুল আকন (২০), ইব্রাহিম আকন (২২), হাফিজুল আকন (৩০), আলাউদ্দিন আকন (৪০), কামাল আকন (৪০), জালাল আকন (৩২), আলম আকন (৬০), আইয়ূব আকন (৫৫), মনিরুল আকন (৪০), আফজাল আকনের স্ত্রী ডেইজি (৩৫), ফকু আকনের স্ত্রী কহিনুর (৫০) আহত হয়।

[৪] অপর পক্ষের ইউসুফ আকন (৬৫), জুয়েল আকন (৪০), মহিবুল (২৮), দুলাল আকন (৫৫), নসু আকন (৬৫), সোহেব আকন (৩৫) ও সজল আকন (৩০) আহত হয়েছে। স্বজন ও স্থানীয়রা উভয় পক্ষের আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে।

[৫] গুরুত্বর আহত অবস্থায় ফকু আকন, আলাউদ্দিন আকন, কামাল আকন, জালাল আকন, আলম আকন, আইয়ূব আকন, হাফিজুল আকন, রাকিবুল আকন, ইব্রাহিম আকন ও দুলাল আকনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকী আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

[৬] আহত ফকু আকন বলেন, আমি ও ইউসুফ আকন আমরা একই বংশের আপন চাচাতো ভাই। পূর্বেই পারিবারিকভাবে আমাদের জমিজমা ভাগ বাটোয়ারা করা হয়। আমার দখলীয় মাত্র ১০ বিঘা জমি নিয়ে তাদের সাথে আমাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। আজ সকালে আমরা ওই জমি চাষাবাদ করতে গেলে ইউসুফ আকন ও তার লোকজন আমাদেরকে জমি চাষাবাদে বাঁধা দেয়। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে আমাদের মাথা ফাঁটিয়ে দেয় ও অনেকের হাত ভেঙ্গে ফেলে। এতে আমাদের ১০/১২ জন গুরুত্বর আহত হয়েছে।

[৭] অপর পক্ষের আহত ইউসুফ আকন বলেন, পূর্ব থেকে এ জমি আমি চাষাবাদ করে আসছি। গত একমাস পূর্বে আমার চাচাতো ভাই ফকু আকন এ জমি তার বলে দাবী করে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত আবেদন দাখিল করেন। ওই জমির ফয়সালা না হওয়ার আগে আজ সকালে তারা লাঠিসোটা নিয়ে ওই জমি চাষাবাদ করতে যায়। আমারা বাধা দিলে তারা আমাদের পিটিয়ে আহত করে।

[৮] স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, মাত্র ১০ বিঘা জমি চাষাবাদ নিয়ে একই বংশের দুই পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের মহিলাসহ ২০ জন আহত হয়েছে।

[৯] আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. শাহাদত হোসেন বলেন, আহতদের মধ্যে লাঠির আঘাতে অনেকের মাথা ফেঁটে গেছে। আবার অনেকের হাতও ভেঙ্গে গেছে। এছাড়া অধিকাংশের শরীরের বিভিন্নস্থানে ফুলা জখমের চিহ্ন রয়েছে। গুরুত্বর আহত ১০ জনকে বরিশাল শেবাচিম ও পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

[১০] আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহআলম হাওলাদার বলেন, পারিবারিকভাবে জমিজমা নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনার সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে পুলিশ পাঠিয়েছি। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সম্পাদনা : হ্যাপি

সর্বাধিক পঠিত