প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মারুফ রায়হান খান : আল্লাহ কেন বারবার আমার সাথেই এমন করছেন?

মারুফ রায়হান খান : ওয়ার্ডের একজন পেশেন্ট নিয়ে আমরা বেশ হেজিট্যান্সির মধ্যে আছি। ওয়ার্ডে ঢুকলেই ভয়ে ভয়ে থাকি কখন না জিজ্ঞেস করে বসেন, “আমার বাচ্চা কেমন আছে? আপনারা কি এন আই সিউতে গিয়েছিলেন? আমার বাচ্চাটাকে দেখে আসেননি?” আর আমরা থতমত খেয়ে যাই। সতর্কভাবেই কামনা করি উনার ফলো-আপটা যেন আমাকে না দিতে হয়–অন্য কেউ দিক এই বেড।

মহিলাটার বাচ্চা মারা গিয়েছে। এই বিষয়টা তার কাছ থেকে গোপন রাখা হয়েছে। পরিবার থেকে তারা কোনোভাবে চাইছে না তাকে জানানো হোক যে তার বাচ্চাটা জীবিত নেই। আমাদেরকে না জানাতে অনুরোধ করেছেন। উনাকে তারা জানিয়েছেন তার বাচ্চা নবজাতক নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (এন আই সি ইউ) আছে। উনি সুস্থ হলেই বাচ্চাকে তার কাছে দেওয়া হবে। তার আগের বাচ্চাটাও এন আই সিউতে থেকে মারা গেছে। তার এই বাচ্চাটাও এন আই সিউতে আছে–এই শোকে তার মানসিক অবস্থা বেশ খারাপ। আর যদি জানতে পারেন তার বাচ্চাটা আর জীবিতই নেই তাহলে কী দশা হবে তা আর চিন্তা করতে পারছি না।

তাকে হাসপাতাল থেকে ডিসচার্জও দেওয়া যাচ্ছে না কাটা জায়গায় ইনফেকশান থাকায়।

আজ সন্ধ্যায় রাউন্ডের সময় রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স মাস্টার্স করা মানুষটি অঝোরে কেঁদে উঠলেন। ম্যাডামকে কাঁদতে কাঁদতে বলছিলেন, “আমি আর এখানে থাকতে পারছি না। আমার একটাই চাওয়া–আমাকে ছুটি দিয়ে দিন। আমার বুকে দুধ এসে আছে অথচ বাচ্চাকে খাওয়াতে পারছি না। টাকার অভাবে ক্যাবিন নিতে পারিনি, ওয়ার্ডে আমি না পারছি টয়লেট ইউজ করতে, না পারছি খেতে, না পারছি ঘুমাতে। আল্লাহ কেন বারবার আমার সাথেই এমন করছেন? ছোটবেলায় মাদ্রাসা লাইনে পড়াশোনা করেছি।” তারপর আরবিতে একটা আয়াত বললেন। তার অর্থ বললেন, “আল্লাহ মৃতকে জীবিত করেন। আমার বাচ্চাটাকে কি আল্লাহ জীবন দিতে পারেন না? কতো মানুষের বাচ্চা ৭ মাসের সময় হয়ে কতো সুস্থ থাকে…চাকরি-বাকরি ছেড়ে দিয়ে এই বাচ্চাটার জন্যে ফুল রেস্টে থেকেছিলাম…আমার দেড় বছরের সময় আব্বা মারা যায়…খরচ চালানোর কেউ নেই…” আরও কতোকিছু বলে যাচ্ছিলেন আর কান্নার দমক বেড়ে চলছিলো…

(ফেসবুক থেকে)

 

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত