প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনার মধ্যেও পর্যটকে মুখর কুয়াকাটা সৈকত

পটুয়াখালী প্রতিনিধি: [২] চিরচেনা রূপে ফিরেছে এই সমুদ্রসৈকত। গত চার মাসে সাগরকন্যার এমন রূপ দেখেনি কেউ। ঈদ-পরবর্তী কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতে পর্যটকদের ঢল নেমেছে। করোনাভাইরাসের দুর্যোগ পেছনে ফেলে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের সমাগমে এখন মুখর সাগরকন্যা।

[৩] বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে ঈদের চতুর্থ দিন মঙ্গলবার হাজার হাজার পর্যটকের উপচেপড়া ভিড়ে মিলনমেলায় রূপ নেয় কুয়াকাটা। ঢেউয়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সৈকতে হৈ-হুল্লোড়, গোসল, দৌড়ঝাঁপ ও আনন্দে মেতেছেন পর্যটকরা। পূর্ণিমার জোঁ থাকায় উত্তাল সমুদ্রে ঢেউয়ের সঙ্গে মিতালিতে মাতোয়ারা পর্যটক ও দর্শনার্থীরা।

[৪] কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকত ঘুরে দেখা যায়, নেচে-গেয়ে দীর্ঘদিনের ঘরবন্দি মানুষ মিলিত হয়েছে প্রাণের স্পন্দনে। সব কিছুই মিলিয়ে দীর্ঘদিনের সুনসান নীরব পর্যটনকেন্দ্র কুয়াকাটা পুনরায় ফিরে পেয়েছে পূর্ণতা। সৈকতের দর্শনীয় স্থানগুলো বাইকে ঘুরে দেখছেন ভ্রমণপিপাসুরা।

[৫] ওয়াটার বাইক নিয়ে সমুদ্রে দাপিয়ে বেড়ানোর দৃশ্য রোমাঞ্চকর। পর্যটকদের এসব দৃশ্য ছিল চোখে পড়ার মতো। সৈকতে নতুন যুক্ত হওয়া ঘোড়ার গাড়িতে শিশু ও বয়স্করা এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ঘুরে সমুদ্র ও নৈসর্গিক সৌন্দর্য অবলোকন করছেন। কেউ কেউ চার চাকার বিচ বাইক নিয়ে জলকেলিতে মিলিত হয়েছেন। সমুদ্রের সান্নিধ্যে এসে বুকভরা নিশ্বাস নিতে পেরে খুশি পর্যটকরা।

[৬] পাশাপাশি সুন্দরবনের পূর্বাংশ টেংরাগিরি বনাঞ্চল, লেম্বুর বন, গঙ্গামতির লেক, জাতীয় উদ্যান, লাল কাঁকড়ার চর, বৌদ্ধবিহার ও রাখাইন পল্লীতে অসংখ্য পর্যটকের ভিড় দেখা গেছে। তরুণ-তরুণীরা দল বেঁধে ৩০-৪০টি মোটরসাইকেল বহর নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সমুদ্রসৈকতে ঘুরতে এসেছেন।

[৭] আবাসিক হোটেল-মোটেলে রয়েছে চাহিদামাফিক বুকিং। বেচাকেনা বেড়েছে খাবার হোটেল, শামুক ও ঝিনুকের দোকান, শুঁটকি মার্কেট, বার্মিজ পণ্যসহ পর্যটকনির্ভরশীল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে।

[৮] করোনার প্রাদুর্ভাবে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর এই প্রথম পর্যটকদের পদচারণায় প্রাণচাঞ্চল্য ফিরেছে কুয়াকাটায়- এমনটি জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।সম্পাদনা: জেরিন

সর্বাধিক পঠিত