প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিয়ের ক্ষেত্রে কি দেখে মেয়ে পছন্দ করা উচিত..?

ডেস্ক রিপোর্ট  : পাত্রী নির্বাচনের ক্ষেত্রে দ্বীনদারী আগে দরকার। ইহুদিরা দেখে সম্পদ , খ্রিস্টানরা দেখে সৌন্দর্য আর মুসলমানদের দেখা উচিৎ দ্বীনদারী। ইসলামে মেয়ে হয়ে জন্ম নেয়া আজাব বা মুছিবত নয়, আল্লাহর রহমত। দ্বীনদারী অনুযায়ী না চলার কারণে আমাদের কাছে /পরিবারের কাছে মেয়ে হওয়া বোঝা মনে হয়।
.
হযরত আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন: নারীকে চার কারণে বিবাহ করা হয়।
.
(১) তার ধন-সম্পদের কারণে
.
(২) তার বংশ মর্যাদার কারণে
.
(৩) তার সৌন্দর্যের কারণে এবং
.
(৪) তার দ্বীনদারীর কারণে।
.
সুতরাং তুমি দ্বীনদার বিবি লাভ করে কামিয়াব হও। তোমাদের হস্তদ্বয় ধ্বংস হোক অর্থাৎ তুমি ধ্বংস হও (যদি দ্বীনদার ব্যতীত অন্য নারী চাও)। (বুখারী-মুসলিম, মিশকাত-২৬৭
.
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন: “গোটা দুনিয়াই হলো সম্পদ, আর দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ সম্পদ হল নেককার বিবি।” (মুসলিম শরীফ, মিশকাত- ২৬৭)
.
আল্লাহর নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ইরশাদ করেছেন:
.
“যে ব্যক্তি কোন মহিলাকে তার আভিজাত্যের কারণে বিবাহ করবে আল্লাহ তা’আলা তার অপমান ও অপদস্থতা অধিক হারে বৃদ্ধি করবেন। আর যে ব্যক্তি তার ধন-সম্পদের কারণে তাকে বিবাহ করবে, আল্লাহ পাক তার দারিদ্রতাকে (দিনে দিনে) বৃদ্ধি করে দেবেন। আর যে ব্যক্তি তাকে বিবাহ করবে তার বংশ কৌলীন্য দেখে, আল্লাহ পাক তার তুচ্ছতা ও হেয়তা বাড়িয়ে দেবেন। আর যে ব্যক্তি কোন মহিলাকে শুধুমাত্র এই জন্য বিবাহ করে যে, সে তার চক্ষুকে অবনত রাখবে এবং লজ্জা স্থানকে হেফাজত করবে অথবা (আত্মীয়দের মধ্যে হলে) আত্মীয়তা রক্ষা করবে, তাহলে আল্লাহ সেই নারী-পুরুষ উভয়ের জীবনেই বরকত দান করবেন। “।
.
(তাবারানী)
.
পাত্র-পাত্রী নির্বাচনের ক্ষেত্রে শরী‘আতের দৃষ্টিতে লক্ষণীয় বুনিয়াদী বিষয় হল দ্বীনদারী। এরপর সৌন্দর্য, ধন-সম্পদ ইত্যাদি বিষয় বিবেচনায় আনা যায়। এই তিন জিনিষ বা এর কোনটি থাকলে ভালো, না থাকলে কোন ক্ষতি নেই। কেননা, এগুলি ক্ষণস্থায়ী। আজ আছে, কাল নাও থাকতে পারে। পক্ষান্তরে দ্বীনদারী হচ্ছে মানুষের প্রকৃত ও স্থায়ী সম্পদ। যার মধ্যে দ্বীনদারী নেই তার মধ্যে বাকি তিনটি জিনিষ পূর্ণমাত্রায় থাকলেও বলা যায় যে, তার কিছুই নেই। আল্লাহ ও তার রাসূলের তরীকা অনুযায়ী জীবন যাপনকারী সর্বাধিক পছন্দনীয়।
.
(মিশকাত শরীফ- ২/২৬৭)

(সংগ্রহিত)

সর্বাধিক পঠিত