প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাত ময়দান

রাশিদ রিয়াজ : [২] বৃহস্পতিবার সূর্যোদয়ের পর থেকে সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ব্যবস্থাপনায় আরাফাতের ময়দানে রওনা দেন হজে অংশগ্রহণকারীরা। আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত হয়ে ক্ষমা প্রার্থনা ও ইবাদত-বন্দেগি চলে সূর্য ডোবার আগ পর্যন্ত। তাদের সবার কণ্ঠে ধ্বনিত হতে থাকে, ‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লাব্বাইকা লা শারিকা লাকা লাব্বাইক, ইন্নাল হামদা ওয়ান-নিমাতা লাকা ওয়াল মুলক, লা শারিকা লাব্বাইক’।

[৩] আরাফাতের ময়দানে অবস্থিত মসজিদে নামিরা থেকে হজের খুতবায় করোনা মুক্তি ও বিশ্ব শান্তি কামনা করে খতিব শায়খ আবদুল্লাহ বিন সোলায়মান আল মানিয়া বিশেষ দোওয়া করেন। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুর সাড়ে বারোটায় সালাম দিয়ে হজের খুতবা শুরু করে শায়খ মানিয়া বৈশ্বিক মহামারি থেকে মুক্তি, গোনাহ মাফ, আল্লাহর রহমত কামনাসহ সম-সাময়িক প্রসঙ্গ নিয়ে নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন।

[৪] খুতবা শেষে জোহরের নামাজের আজান দেন মসজিদের হারামের মুয়াজ্জিন শায়খ ইমাদ বিন আলি ইসমাইল। এর পর খতিব উপস্থিত হাজিদের নিয়ে দুই ইকামতে জোহর ও আসরের নামাজ আদায় করেন।

[৫] হজের অন্যতম ফরজ হলো- ৯ জিলহজ আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করা। আরাফাতের ময়দানে হজরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বিদায় হজের ভাষণ দিয়েছিলেন। সেই রীতি অনুযায়ী প্রতি বছর ৯ জিলহজ আরাফাত ময়দানে হজের খুতবা দেওয়া হয়। হাদিসের ভাষায়- আল-হাজ্জু আরাফাহ অর্থাৎ আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত হওয়াই হজ।

[৬] এ বছর খুতবা অন্যান্য ভাষার পাশাপাশি বাংলা ভাষায়ও অনুবাদ করে সম্প্রচার করা হচ্ছে। এবার সরকারি-বেসরকারি মিলে প্রায় ৬৫ হাজার মানুষ হজে যেতে আগ্রহী ছিলেন। করোনা মহামারির কারণে সৌদি সরকারের নিষেধাজ্ঞায় এবার বাইরের কোনো দেশ থেকে কেউ হজে যেতে পারেননি।

[৭] তারপরও প্রতীকী এই হজে তাওবাহ-ইসতেগফার, তাকবির ও তালবিয়ায় মুখরিত হয়ে ওঠে ঐতিহাসিক আরাফাতের ময়দান। হজে অংশগ্রহণকারীরা এক সামিয়ানায় সমবেত হয়ে মহান আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

[৮] বিশ্বব্যাপী মুসলিম উম্মাহও হজ পালনকারীদের সঙ্গে আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগিতে তাদের জন্য দোয়া কামনা করেন। অনেকে নফল রোজাও রাখেন। হজে অংশগ্রহণকারীরা সুস্বাস্থ্য, সুস্থতা ও নিরাপত্তার মাধ্যমে সুন্দরভাবে হজ সম্পাদন করতে পারে সে জন্যে আল্লাহর কাছে বিশেষ মোনাজাত করেন মুসল্লিরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত