প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আওয়ামী লীগ নেতা ও সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি, পিটুনি দিয়ে আটক

বিপ্লব বিশ্বাস : [২] সাতক্ষীরা কালিগঞ্জের ভাড়াশিমলা ইউনিয়নে ঈদুল আযহা উপলক্ষে ভিজিএফ কার্ডের চাউল বিতরণ-কালে মাপে কম দেওয়ার অজুহাত তুলে চেয়ারম্যানের থেকে চাঁদা নেওয়ার অভিযোগে গণপিটুনি দিয়ে কথিত সাংবাদিক মামুনকে আটক করে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট হস্তান্তর করা হয় মঙ্গলবার বেলা ১২টার সময় কালিগঞ্জ উপজেলা ভাড়াশিমলা ইউনিয়ন পরিষদে এ-ঘটনা ঘটে।

[৩] গণ টিভির কথিত সাংবাদিক পরিচয়দানকারী চাঁদাবাজ এবং আওয়ামীলীগ বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের কেন্দ্রীয় নেতা পরিচয় দিয়ে উপজেলা জুড়ে বিভিন্ন ইটপাজা,ইটভাটা, চিংড়ীতে পুশ, আমের মৌসুমে রাসায়নিক মিশ্রণসহ উপজেলার বিভিন্ন প্রকল্পের কাজের অনিয়মের ধুয়ো তুলে বছরের পর বছর চাঁদাবাজি করে আসছে বলে এলাকার লোকজন জানান।

[৪]মঙ্গলবার ভিজিএফ কার্ড বিতরণের সময় ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে যুবলীগ নেতা আব্দুল আলিম জানান, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে প্রধান মন্ত্রীর দেওয়া অসহায় মানুষের ১০ কেজি করে ভিজিএফএর চাউল বিতরণ করা হচ্ছিল। খবর পেয়ে কথিত সাংবাদিক দুদলী গ্রামের মামুন সেখানে হাজির হয়ে চাউল কম দেওয়া হচ্ছে এমন অভিযোগ তুলে চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় মেম্বরদের নিকট ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। ঐ সময় চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মাদ বিশ্বাসের নিকট চাউল কম দেওয়ার অজুহাতে চাঁদা দাবী করায় স্থানীয়রা চাউল বিতরণ বন্ধ করে তাকে আটকে রেখে গণধোলাই দিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে খবর দেয়। ঐ সময় বেলা ২টার সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক রাসেল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উত্তেজিত জনতার নিকট থেকে উদ্ধার করে যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন বলে আশ্বাস দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে আটকে রাখে। আটকে রাখার আগে চাঁদাবাজ মামুন চেয়ারম্যানের নিকট থেকে আগেই ১ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় বলে স্থানীয়রা জানান।

[৫]পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কথিত চাঁদাবাজ নামধারী সাংবাদিক মামুন কে সতর্ক করে এ যাত্রায় রেহাই দেয়। ভাড়াশিমলা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব এবং ইউপি চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মাদ বিশ্বাস জানান ১০ কেজি চাউল বিতরণের কথা থাকলেও অনেক অসহায় মানুষের চাহিদার কারণে জনপ্রতি ৮ কেজি করে চাউল বিতরণ করা হচ্ছিল। এমন খবর পেয়ে আওয়ামী স্বাধীনতা প্রজন্ম-লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক ও অনলাইন গণটিভির সাংবাদিক জিএম মামুন হোসেন উপস্থিত হয়ে বিভিন্ন ছবি উঠাতে থাকে। একপর্যায়ে কথিত সাংবাদিক জিএম মামুন চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ বিশ্বাসের কাছ থেকে ১ হাজর টাকা চাঁদা দাবী করে তা হাতিয়ে নেয়। বিষয়টি স্থানীয় জনতা দেখতে পেয়ে কতিথ সাংবাদিক মামুনকে পিটুনি দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে আটকিয়ে রাখে।

[৬]এর আগে কথিত সাংবাদিক পরিচয়দানকারী মামুন রতনপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহসিলদার আশারাফ হোসেনের নিকট চাঁদাবাজি করতে গেলে তাকে ধরে তৎকালীন সহকারী কমিশনার ভূমি বর্তমান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিমুল কুমার সাহার নিকট সোপর্দ করে। ঐ সময় স্থানীয় কিছু সাংবাদিকদের সুপারিশে সে যাত্রায় চাঁদাবাজির মামলা থেকে রেহাই পায়।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত