প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মহাকাশে ‘অ্যান্টি-স্যাটেলাইট’ অস্ত্র পরীক্ষার অভিযোগ রাশিয়ার বিরুদ্ধে

তাপসী রাবেয়া:[২] যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য অভিযোগ তুলেছে যে রাশিয়া মহাকাশে এমন এক ধরণের উৎক্ষেপকের পরীক্ষা চালিয়েছে যেটি মহাকাশে স্যাটেলাইটে আঘাত করার অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা যায়।যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বক্তব্য অনুযায়ী, সম্প্রতি রাশিয়ার ব্যবহার করা এই উৎক্ষেপক ‘মহাকাশ কক্ষপথে স্যাটেলাইট বিরোধী অস্ত্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে। বিবিসি, রয়টার্স

[৩] তবে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা দপ্তর এর আগে জানিয়েছিল যে তারা মহাকাশে রুশ যন্ত্রপাতি পরীক্ষা করার উদ্যেশ্যে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করছে। তখন থেকেই নতুন রুশ স্যাটেলাইটের কার্যক্রম নিয়ে এর আগেই প্রশ্ন তুলেছিল যুক্তরাষ্ট্র।এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অভিযেগা তুললো যুক্তরাজ্যও।

[৪] যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংক্রান্ত ইন্টেলিজেন্স এ্যান্ড সিকিউরিটি কমিটির রিপোর্ট বলছে, রাশিয়া যুক্তরাজ্যকে পশ্চিমা দুনিয়ার সবচেয়ে বড় লক্ষবস্তুু মনে করে।

[৫] এদিকে বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী ক্রিস্টোফার ফোর্ড মস্কোর বিরুদ্ধে দ্বিমুখী আচরণের অভিযোগ তোলেন।বিবৃতিতে তিনি উল্লেখ করেন, “মস্কো যুক্তরাষ্ট্রের সামর্থ্যকে সীমিত করতে চায়, কিন্তু মহাকাশে তাদের নিজেদের কার্যক্রম সীমিত করার কোন ইচ্ছা নেই তাদের।”

[৬] যুক্তরাজ্যের মহাকাশ বিষয়ক অধিদপ্তরের প্রধান হার্ভে স্মিথ বলেছেন যে রাশিয়ার সাম্প্রতিক স্যাটেলাইটের ‘চরিত্রগত বৈশিষ্ট্য অস্ত্রের মত।’রাশিয়াকে ‘দায়িত্বশীল’ আচরণ করার আহ্বান জানিয়ে পরবর্তীতে এ ধরণের কার্যক্রম এড়িয়ে চলার অনুরোধ করেন তিনি।

[৭] রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন সহ ১০০টির বেশী দেশ মহাকাশ সংক্রান্ত একটি চুক্তির অংশ, যেই চুক্তি অনুযায়ী মহাকাশ শুধু শান্তিপূর্ণ কার্যক্রমের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যাবে।মহাকাশে বা কোন স্যাটেলাইটের কক্ষপথে কোন ধরণের অস্ত্র স্থাপন করা যাবে না বলেও উল্লিখিত রয়েছে ঐ চুক্তিতে।

[৮] যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ কমান্ডের প্রধান জেনারেল জে রেমন্ড বলেছেন, সম্প্রতি রাশিয়া যে ‘মহাকাশ ভিত্তিক অ্যান্টি-স্যাটেলাইট অস্ত্র’ পরীক্ষা করেছে তার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

[৯] গত কয়েক দশকে অ্যান্টি-স্যাটেলাইট জাতীয় অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে শুধু চারটি দেশ – ভারত, চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। এর আগে অ্যান্টি-স্যাটেলাইট সমরাস্ত্র বিমান বা রকেটে করে বহন করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত