প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সিলেটে শ্রমিকনেতা ইকবাল হত্যার ৯ দিনে ৮ আসামী গ্রেপ্তার

আহমেদ শামীম: [২] সিলেটে আলোচিত শ্রমিক নেতা ইকবাল হোসেন রিপন হত্যায় জড়িত ৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৯ ও পুলিশ। গত ১০ জুলাই রাত ১০টায় দক্ষিণ সুরমার বাবনা পয়েন্টে খুন হন ইকবাল। খুনের পরপরই পুলিশ অনুসন্ধানে নামে। হত্যার ৯ দিনের সিলেটের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে ৮ আসামীকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব ও পুলিশের চৌকস দল।

[৩] সর্বশেষ আজ রোববার (১৯ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে বরইকান্দি থেকে কুখ্যাত আসামী মনির আহমদ ওরফে ইমন ও আয়নুল হককে গ্রেপ্তার করে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ। ইমন বরইকান্দি ১নং রোডের মৃত ফারুক মিয়ার পুত্র ও আয়নুল হক বি-বাড়িয়া জেলার নাসিরনগর থানার ডরমন্ডল গ্রামের সামছুল হকের পুত্র। তিনি বরইকান্দি ১নং রোডে আফজল মিয়ার কলোনীতে ভাড়ায় থাকতেন।

[৪] গত শুক্রবার (১৭ জুলাই) বিকাল সাড়ে ৬টায় ছাতক থানার বাসষ্ট্যান্ড এলাকা থেকে হাবিবুর রহমান মিন্টু ও রাত ১০টায় মোগলাবাজার থানার দাউদপুর থেকে ইসমাইল আহমদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। মিন্টু দক্ষিণ সুরমার বরইকান্দির ১নং রোডের মৃত বশির মিয়ার পুত্র ও ইসমাইল একই এলাকার মৃত ফরিদ মিয়ার পুত্র।

[৫] এর আগে ১৬ জুলাই বৃহস্পতিবার দক্ষিণ সুরমা থানাধীন কদমতলী বাসষ্ট্যান্ড থেকে ইকবাল হত্যা মামলার অন্যতম আসামী সেজুল (২৫) কে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৯।

[৬] ঘটনার পরপর পুলিশ এজাহারনামীয় আসামী নোমান আহমদ ও ঘটনায় জড়িত সন্দেহে সাদ্দাম হোসেন এবং মো: তারেক আহমদ’কে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করে। পরে ১৫ জুলাই আসামী মো. তারেক আহমদ দোষ স্বীকার করে বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারা মোতাবেক জবানবন্দি প্রদান করে।

[৭] গত ১০ জুলাই রাত ১০টায় দক্ষিণ সুরমা থানার ভাবনা পয়েন্টে হামলার শিকার হন শ্রমিকনেতা ইকবাল হোসেন রিপন। ইকবালকে উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এই ঘটনায় নিহতের স্ত্রী ফারজানা আক্তার তমা ১৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৫/৭ জনের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করেন। দক্ষিণ সুরমা থানার মামলা নং-০৯, (১১.০৭.২০২০)।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত