প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পরিকল্পনা কমিশনে সাংবাদিকদের ঢুকতে নিষেধাজ্ঞা, মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে অনুমতি দিতে বাধ্য হলেন সচিব

সাইদ রিপন : [২] সাবেক স্বাস্থ্য সচিব ও বর্তমান পরিকল্পনা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম পরিকল্পনা কমিশনে সাংবাদিক ঢুকতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে পরিকল্পনা কমিশন বীটের এক সিনিয়র সাংবাদিককে প্রায় আড়াই ঘন্টা আটকে রাখে। পরিকল্পনা কমিশনের প্রধান ফটক থেকে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ইনচার্জ গোলজার বলেন সচিব স্যারের সাংবাদিকদের ভিতরে ঢুকতে না দেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে।

[৩] বৃহস্পতিবার সকালে আনুমানিক ১১.০০ টায় প্রতিদিনের মতো পরিকল্পনা কমিশন চত্বরে প্রবেশ করতে গেলে প্রধান ফটকে কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা গোলজার দৈনিক নয়া দিগন্তের সাংবাদিককে প্রবেশে বাধা দেন। এরপরে একে একে দৈনিক যুগান্তর, দৈনিক আমাদের অর্থনীতি, দৈনিক বিজনেস ষ্ট্যান্ডার্ড, দৈনিক ইনকিলাব, দৈনিক বণিকবার্তার সাংবাদিকদেরকে প্রবেশে বাধা দেয় কর্তব্যরত পুলিশ ও আনসার সদস্যরা। তারা বলেন, সচিব স্যারের নির্দেশনায় কোনো সাংবাদিক তার অনুমতি ছাড়া প্রবেশ করতে পারবে না। তার পিএস ফোন করে আমাদের জানিয়েছেন।

[৪] নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে জানতে সচিব মো. আসাদুল ইসলামকে দফায় দফায় ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। পরে সচিবের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আলমগীর হোসেনের সেল ফোনে কয়েকদফা যোগাযোগ করলেও তিনিও ফোন রিসিভ করেননি। পরে সাংবাদিকরা সচিবের দফতরে কারণ জানার জন্য গেলে তার পিএস আলমগীর হোসেন বলেন, স্যারের নির্দেশেই তিনি পুলিশকে ফোনে এই প্রবেশের নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন।

[৫] এদিকে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের একজন রির্পোটার সাহেদ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সচিবের বক্তব্য জানার জন্য সকাল ১০টা থেকে ওয়েটিং রুমে বসে থাকেন। পৌনে একটার সময় সচিব মো. আসাদুল ইসলাম যখন তার দফতর ত্যাগ করেন তখন সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন।

[৬] প্রশ্ন করার আগেই নিজ থেকে সচিব বলেন, যে বিষয়টা আপনারা জানতে চাচ্ছেন সেটা তো অফিসিয়াল বিষয়। এটা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বিষয়টি দেখছে। ফলে তারা সেখানে কি লিখেছে, তারা যদি আমার কাছে ব্যাখ্যা চায় আমি অবশ্যই ব্যাখ্যা দেবো। তার বাইরে সরকারি চাকুরি করে মিডিয়াতে কোনো বক্তব্য দেয়া আমার পক্ষে ঠিক হবে না।

[৭] পরিকল্পনা কমিশনে সাংবাদিকদের প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে জানতে চাইলে সচিব বলেন, এ ধরনের অর্ডার আমি দেইনি। আপনার নির্দেশে আপনার পিএস পুলিশকে বলেছেন বলেও তিনি স্বিকার করেছেন। তখন সচিব বলেন, পরিকল্পনামন্ত্রী আমাকে ফোন করে বলেছেন, এই চত্বরে যেসব সাংবাদিক নিয়মিত কাজ করছেন তাদের প্রবেশের ক্ষেত্রে বাধা নেই। তারা আসতে পারবেন। কেন এমনটা হলো আমি বিষয়টি দেখছি। আপনি অর্ডার না দিলে পুলিশ কেন আপনার নাম ব্যবহার করলো জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি ওদের সাথে কথা বলবো।

[৮] এ বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান ফোনে বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। এ ধরনের কোনো নিষেধাজ্ঞা আরোপ কেন করবেন। করোনার কারণে আমি বাসায়। সচিব কেন এই ধরনের নিষেধাজ্ঞা দিলেন আমি তার সাথে কথা বলে দেখছি।

সর্বাধিক পঠিত