প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] এগিয়ে থেকেও ৩-৩ গোলে ড্র করলো রোনালদোর জুভেন্টাস

ডেস্ক রিপোর্ট : [৩] মাঠের সময়টা বড্ড খারাপ কাটছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাসের। জয়ের দেখা নেই টানা তিন ম্যাচ। মাঝ টেবিলের দল সুসোলোর বিপক্ষে দুই গোলে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ৩-৩ গোলের সমতায় শেষ হয়েছে খেলা। সেই সঙ্গে গোলের দেখাও পাননি পর্তুগিজ সুপারস্টার।

[৪]সুসোলোর মাঠে নামার আগে দুই ম্যাচের মধ্যে এসি মিলানের বিপক্ষে ২-০’তে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ৪-২ গোলের ব্যবধানে হেরেছিল জুভেন্টাস। পরের ম্যাচে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর দুই গোলে শেষ রক্ষা হয়েছিল তুরিনের বুড়িদের। সে ম্যাচে ড্র করেছিল ২-২ গোলে। এরপর জয়ের ধারায় ফিরতে সুসোলোর বিপক্ষে মাঠে নামে দিবালাবিহীন জুভেন্টাস।

[৫]ম্যাচের শুরুটাও দুর্দান্ত করে মাউরিজিও সারির দল। শুরুটা দেখে মনে হতেই পারে এই ম্যাচে গোল বন্যায় প্রতিপক্ষকে ভাসাতে যাচ্ছে জুভেন্টাস। ম্যাচের সময় তখন কেবল ছয় মিনিট। সদ্য বার্সেলোনায় নাম লেখানো মিরেলাম পিয়ানিচের অ্যাসিস্ট থেকে গোল করেন ব্রাজিলিয়ান ফুলব্যাক দানিলো। জুভেন্টাস এগিয়ে গেল ১-০ গোলের ব্যবধানে।

[৬]প্রথমে এগিয়ে গিয়ে আক্রমণের ধার আরও বাড়িয়ে দেয় জুভেরা। ফলাফলও হাতেনাতে পেয়ে যায় রোনালদোরা। এবার স্কোরশিটে নাম লেখান গঞ্জালো হিগুইয়ান। তবে গোলদাতার নাম পাল্টালেও গোলের যোগানদাতার নাম পাল্টেনি। প্রথমগোলের মতো ম্যাচের ১২ মিনিটের মাথায় হিগুইয়ানের গোলের যোগানদাতাও মিরেলাম পিয়ানিচ। খেলার সময় ১২ মিনিট ছুঁতেই জুভেন্টাস এগিয়ে ২-০ গোলের ব্যবধানে।

[৭]এরপর ঘুরে দাঁড়ায় সুসোলো। ম্যাচের ২৯তম মিনিটে ফিলিপ জুরিচিচের গোলে ব্যবধান ২-১ করে সুসোলো। এরপর প্রথমার্ধে আর কোনো দলই গোলের দেখা না পাওয়ায় ২-১ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জুভেন্টাস।

[৮]বিরতি থেকে ফিরে হন্য হয়ে ওঠে সুসোলো। একের পর এক আক্রমণে জর্জরিত করে ফেলে তুরিনের বুড়িদের রক্ষণভাগ। আর দুর্দান্ত সব আক্রমণের ফলও পেয়ে যায় হাতেনাতে। দ্বিতীয়ার্ধের ঘড়ির কাঁটা পাঁচ ছুঁতেই ডমেনিকো বেরার্ডির গোলে ম্যাচে সময়তায় ফেরে সুসোলো। ২-২ গোলে সমতায় ফেরার পর আরও যেন নিষ্ঠুর হয়ে ওঠে তারা। সমতায় ফেরার মিনিট তিনেক পর ফ্রান্সেস্কো কাপুতোর গোল ম্যাচে প্রথমবারের মতো লিড নেয় সুসোলো। দুর্দান্ত এক গোলে ৩-২ ব্যবধানে লিড নেয় স্বাগতিকরা।

[৯]পিছিয়ে পড়ে ম্যাচে ফেরার জন্য এবার মরিয়া হয়ে ওঠে জুভেরা। তবে বেশ কিছু আক্রমণ নষ্ট হওয়ার পর অবশেষে ম্যাচের ৬৪ মিনিটে রদ্রিগো বেনটাকারের অ্যাসিস্ট থেকে গোল করেন আলেক্স সান্দ্রো। আর জুভেদের ফেরান ৩-৩ গোলের সমতায়। এর আগে অবশ্য সুযোগ এসেছিল রোনালদোর কাছে দলকে সমতায় ফেরানোর। তবে সুসোলোর ডি বক্সের ভেতরে দিবালার দেওয়া পাস থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন রোনালদো। এই ম্যাচে গোল করলে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, স্প্যানিশ লা লিগা এবং সিরি আ’তে ৫০ গোল করার রেকর্ড গড়তেন রোনালদো। তবে তার জন্য আরও অপেক্ষা বাড়ল পর্তুগিজ এই সুপার স্টারের। এই ম্যাচে ড্র’র মাধ্যমে সিরি আ’র শিরোপার লড়াই খানিকটা জমে উঠল। পয়েন্ট টেবিলে ৩৩ ম্যাচ শেষে ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে রীতিমত শীর্ষে জুভেন্টাস, আর সমান ম্যাচে ৭০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আটালান্টা।
সূত্র- সারাবাংলা

সর্বাধিক পঠিত