প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ইয়েমেনে অভিবাসী শ্রমিকদের বিরুদ্ধে নভেল করোনাভাইরাস ছড়ানোর অভিযোগ, নির্যাতন

সিরাজুল ইসলাম : [২] লাখো আফ্রিকান অভিবাসী (বেশিরভাগ ইথিওপিয়) হয়রানীর শিকার হচ্ছে এবং তাদের আটকে রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। আলজাজিরা

[৩] কমপক্ষে ১৪ হাজার ৫০০ জন অভিযোগ করেছেন, তাদের লাঠিপেটা করা হয়েছে। নির্যাতনকারীরা তাদের ভাইরাসের বাহক বলছেন। মূল শহর থেকে তাদের বিভিন্ন প্রদেশে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। যথেষ্ট খাবার কিংবা আশ্রয় না দিয়ে তাদের আটকে রাখা হচ্ছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা (আইওএম)।

[৪] ইয়েমেনে আইওএম মিশন প্রধান ক্রিস্টা রোটেনসটেইনার বলেন, প্রায় ছয় বছর ধরে ইয়েমেন অভিবাসীদের জন্য প্রচন্ড অনিরাপদ। কোভিড-১৯ পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটাচ্ছে। অভিবাসীদের ভাইরাসবাহী বলা হচ্ছে।

[৫] ৫ বছরের গৃহযুদ্ধে বিধ্বস্ত ইয়েমেনকে সৌদি আরব পৌঁছানোর পথ মনে করেন আফ্রিকানরা। সীমান্তের কাছে তারা অবর্ণনীয় নিষ্ঠুরতা- নির্যাতন, ধর্ষণ, আটক ও চাঁদাবাজির শিকার হন।

[৬] আইওএম বলছে, প্রতি মাসে হাজারো ইথিয়পিয় ইয়েমেন সীমান্ত পাড়ি দিয়ে সৌদি আরব যায়। নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় এ সংখ্যা কমেছে ৯০ শতাংশ। যারা যাওয়ার চেষ্টা করছেন, তারা খোলা আকাশের নিচে কিং অনিরাপদ দালানে থাকছেন। তারা ভাইরাস সংক্রমণের চরম ঝুঁকিতে রয়েছেন।

[৭] অভিবাসীদের অনেককে দাস হিসেবে বিক্রিও করা হয়। আবার তারা চোরাচালানী হিসেবেও ব্যবহৃত হন। এক অভিবাসী বলেন, সানায় পৌছানোর আগের দুই মাস পাচারকারীরা তাকে আটকে রাখে ও নির্যাতন করে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত