প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুপন রায়: এই শাহেদ নামের সর্বগ্রাসী দানবটি একদিনে তৈরী হয়নি

সুপন রায়: ‘The omen’ছবির পিচাশপুত্র ডমিয়েনের মতো পর্বে পর্বে, ধাপে ধাপে তৈরী হয়েছে। প্রাথমিক পুঁজি যোগাড হয়েছে mlm ব্যাবসায় আমানতকারীর টাকা মারার সফলতা দিয়ে।

টাকাটা সে নিশ্চয় ই একলা খায়নি। মামলা নিশ্চয় হয়েছে। ৩২ টা | তাকে ম্যানেজ করতে হয়েছে পুলিশকে, মিডিয়া হিসাবে রাজনীতিককে এবং বুদ্ধিমানসহযোগীকে।

সবার পেছনেই কমবেশী টাকা খরচ হয় | শুকনো হাড্ডি কুত্তায় ও চাবায় না | প্রাচীন বাংলা প্রবাদ। তার কুরিয়ার সার্ভিস ব্যাবসা ওপেনিং এর সময় সেনাপ্রধান মঈন ইউ আহমেদের উপস্থিতিই তার “হ্যাডম” এর জানান দেয়।

সে যার কাছ থেকেই যা কিনেছে, রপ্রাথমিক মুল্যের পর আর কোনো পেমেন্ট দিয়েছে এ ধরনের নজীর বিরল। সাংবাদিক আমিরুল মোমেনিন মানিক কে দিয়ে সে প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন তৈরি করাত ৯০০০০ টাকায়। ১০০০০ টাকা প্রাথমিক পেমেন্টের পর বাকী ৮০০০০ টাকা আজও দেয়নি | ২০০৭ সাল থেকে ২০২০ | কেটে গেছে ১৩ বছর |

টাকা চাইতে গিয়ে সাংবাদিক সাহেব তার প্রাইভট চেম্বারর মেহেনানদারী(টর্চার সেলের নির্যাতন ) পেয়েছেন কিনা তাও জানা নেই। তবে, বহু ভাগ্যবান তার বিচিত্র মেহমানদারীতে নাকাল হবার ঘটনা এখন সরব। Youtube এ বহু কাহিনী ঘুরছে ॥ বৈমানিক এক ভাই জানালেন, কমপক্ষে ২০ জনের অভিযোগের কাহিনী ঘুরছে |

কথা হচ্ছে, ঐ সময়গুলোতে যে সকল ভুক্তভোগী থানায় যাবার পরও জিডি পর্যন্ত করতে পারেননি কেনো? তৎকালীন উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি ভাল বলতে পারবেন | যারা তার জন্যে তদবির করেছেন, জানা হোক কিসের বিনিময়ে তারা সেই তদবির করেছেন।

কারা তাকে রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানিয়েছে? কিসের বিনিময়ে? কারা মিডিয়া তে তাঁর অবসহান তৈরীতে সহায়তা করেছেন | কানেকশন, বিশেষ তদবির এবং প্রাপ্তিযোগ ছাড়া এ কাজ তারা করেননি বলে ধারনা করছি |

তার স্ত্রীর FLAG Stand লাগিয়ে, বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী নিয়ে চলা মানুষের মানুষের মুখে মুখ ফিরছে | ফেসবুক থেকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত