প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশ থেকে টাকা পাচার বন্ধের পদক্ষেপ নিবে কানাডার অন্টারিও লিবারেল পার্টি : স্টিভেন ডেল ডোকা

সালেহ্ বিপ্লব : কানাডার অন্যতম বৃহত্তম প্রভিন্স অন্টারিওর লিবারেল পার্টির নেতা স্টিভেন ডেল ডোকা বলেছেন, আগামী নির্বাচনে প্রিমিয়ার নির্বাচিত হলে এই প্রভিন্সে মুদ্রা পাচার হয়ে আসা বন্ধে পদক্ষেপ নেবেন। তিনি বলেন, আমি জানি, এই ধরনের মুদ্রা পাচারের ঘটনা বাংলাদেশি কমিউনিটিকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে, অন্যান্য কমিউনিটিকেও ক্ষতিগ্রস্থ করছে। তিনি বলেন,অন্টারিও প্রভিন্সিয়াল পুলিশ, আরসিএমপি রেভিনিউ কানাডাকে সমন্বিত করে যৌথভাবে এই সমস্যা সমাধানের পদক্ষেপ নিতে হবে।

কানাডার বাংলা পত্রিকা নতুনদেশ-এর প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী সাগরের সঙ্গে শনিবার সকালে (টরন্টো সময়) ভার্চুয়াল আলোচনায় প্রভিন্সিয়াল লিবারেল পার্টির নেতা স্টিভেন ডেল ডোকা এই মন্তব্য করেন।

স্টিভেন ডেল ডোকা অন্টারিও লিবারেল পার্টির নেতা হিসেবে নতুন নির্বাচিত হয়েছেন। আগামী ২০২২ সালের জুন মাসে অনুষ্ঠেয় পরবর্তী নির্বাচনে তাঁর দল লিবারেল পার্টি জয়ী হলে তিনি প্রভিন্সের প্রিমিয়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। নতুনদেশ সম্পাদকের সঙ্গে আলোচনায় তিনি অন্টারিও প্রভিন্সিয়াল সরকারের করোনা মোকাবেলা, অর্থনীতি, স্বাস্থ্যসেবাসহ অন্যান্য জরুরী সেবাখাত নিয়ে নাগরিকদের জন্য তাঁর কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন।

বাংলাদেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থা থেকে অর্থ লুট হওয়া অর্থ কানাডায় পাচার হওয়ার প্রসঙ্গ তুলে ধরে সাংবাদিক শওগাত আলী সাগর জানতে চান- প্রভিন্সের প্র্রিমিয়ার হিসেবে নির্বাচিত হলে অন্টারিও যাতে মুদ্রা পাঁচারকারীদের অভয়ারণ্যে পরিণত না হয় সে ব্যাপারে তিনি কি পদক্ষেপ নেবেন। জবাবে লিবারেল নেতা স্টিভেন ডেল ডোকা বলেন, আমি এই বিষয়ে বিশেষজ্ঞ নই। তবে প্রিমিয়ার হিসেবে নির্বাচিত হলে সংশ্লিষ্ট সংস্থাাগুলোকে সমন্বিত করে পাঁচার হওয়া অর্থ প্রভিন্সে আসা বন্ধে পদক্ষেপ নেবো। সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো যাতে সুনির্দিষ্ট কর্মপন্থা নিয়ে কাজ করতে পারে সে জন্য প্রয়োজনীয় তহবিল প্রাপ্তি নিশ্চিত করা হবে। বাংলাদেশি অধ্যূষিত স্কারবোরো সাউথওয়েস্ট এবং বিচেস ইষ্ট ইয়র্ক নির্বাচনী এলাকায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীদের মনোনয়নের জন্য বিবেচনা করা হবে কী না জানতে চাওয়া হলে স্টিভেন ডেল ডোকা বলেন, শুধু এই দুটি আসনই নয়, আরো বেশি নির্বাচনী এলাকায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যোগ্য প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্ধিতার জন্য এগিয়ে এলে আমি খুবই খুশি হবো। তিনি বলেন, দুই বছর আগের নির্বাচনে দল ক্ষমতায় ছিলো, অধিকাংশ আসনই দীর্ঘদিনের পুরনো নেতাদের আয়ত্বে ছিলো।এখন অনেক সুযোগ তৈরি হয়েছে।বাংলাদেশি কমিউনিটিসহ প্রত্যেক কমিউনিটি থেকেই আমরা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রার্থী আশা করতে পারি। তিনি বলেন,বাংলাদেশি কমিউনিটির সত্যিকারের যোগ্য এবং মেধাবী তরুন নারী পুরুষেরা আগামী নির্বাচনে লিবারেল পার্টির মনোনয়নের জন্য এগিয়ে আসবে এবং কেউ কেউ অন্টারিও লিবারেল পার্টির পার্টির মনোনয়ন লাভে সক্ষম হবে বলে আমি আশা করি।

প্রার্থীতা বাছাইয়ে একটি দল প্রার্থীর কাছে কি চায়- জানতে চ্ওায়া হলে প্রভিন্সিয়াল লিবারেল নেতা বলেন, পরিশ্রমী, দক্ষ এবং যোগ্য তরুন- তরুনীদের লিবারেল পার্টি সম্ভাব্য প্রার্থীতার জন্য বিবেচনায় রাখছে। একজন সম্ভাব্য প্রার্থীকে অবশ্যই লিবারেল পার্টির মূল্যবোধকে মনে প্রাণে ধারন করে বৈচিত্র, সহিষ্ণুতা, অন্যকে সমর্থন ও সহযোগিতা করার মানসিকতার প্রমান দিতে হবে। নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে ৪৬ বছর বয়সী ডেল ডোকা বলেন, আমি ১৫ বছর বয়স থেকে লিবারেল পার্টির কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্ত আছি। একটি দলের প্রার্থী হ্ওয়া একেবারে সহজ ব্যাপার কিন্তু নয়। প্রত্যেকটি দলই নিবেদতি প্রাণ পরিশ্রমী ব্যক্তিকে দলের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায়।নির্বাচনী এলাকার হাজার হাজার দরোজায় গিয়ে ভোটারদের সঙ্গে সরাসরি কথাবার্তা বলার অভিজ্ঞতা, তহবিল সংগ্রহ, দলের বার্তা কার্যকরভাবে নাগরিকদের কাছে পৌঁছে দেয়ার মতো যোগযোগ দক্ষতা থাকতে হবে। তিনি বলেন, দলের নেতা নির্বাচনের সময় আমার ঘোষনা ছিলো নারী পুরুষ সমান সংখ্যক প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া। আগামী নির্বাচনে সেটি বাস্তবায়নের চেষ্টা করা হবে। তিনি বলেন, আমি আরো তরুন এবং নারীদের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চাই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত