প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] শ্রমিকদের মে মাসের মজুরি পরিশোধ করেছে ৯৬ দশমিক ৩০ শতাংশ পোশাক কারখানা

শরীফ শাওন: [২] বিজিএমইএর সদস্য সচল ১৯২৬ পোশাক কারখানার মধ্যে শ্রমিকদের বেতন দিয়েছে ১৮৫৫ কারখানা। ৭১ কারখানায় বেতন পরিশোধের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

[৩] ঢাকা মেট্রোপলিটলিটনের অধীনে সদস্য ৩৩৩ কারখানার মধ্যে মে মাসের বেতন পরিশোধ করেছে ৩১৪ কারখানা। গাজীপুরের ৭১৩ কারখানার মধ্যে ৬৯৩, সাভার-আশুলিয়ার ৪১২টির মধ্যে ৩৯৭টি, নারায়ণগঞ্জের ১৯৮টির মধ্যে ১৯৬টি, চট্টগ্রামের ২৫২টির মধ্যে ২৪০টি এবং প্রত্যন্ত অঞ্চলের ১৮টি কারখানার ১৫টি শ্রমিকদের মে মাসের বেতন পরিশোধ করেছে।

[৪] বিজিএমইএ’র দাবি, প্রক্রিয়াধীন কারখানাগুলোর মধ্যে ঢাকার ১৯টি, গাজীপুরের ২০টি, সাভার-আশুলিয়ার ১৫টি, নারায়ণগঞ্জের ২টি, চট্টগ্রামের ১২টি ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের ৩টি কারখানা রয়েছে।

[৫] বিজিএমইএ জানায়, শ্রমিকদের তিন মাসের বেতন পরিশোধে (এপ্রিল, মে ও জুন) ২ শতাংশ সুদের বিপরীতে ৫ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা ঋণ দেয়া হলেও তা কেবল পোশাক শ্রমিকদের জন্য ছিলোনা। শুধু পোশাক খাতেই প্রতিমাসে ৪ হাজার কোটি টাকা বেতন পরিশোধ করতে হয়। জানা যায়, মে মাসের বেতন পরিশোধে দ্বিতীয় ধাপে প্রণোদনার অধিকাংশ টাকাই উত্তোলন করা হয়েছে।

[৬] শ্রমিকদের পরবর্তী ৩ মাসের (জুলাই, আগস্ট ও সেপ্টেম্বর) বেতন পরিশোধ ও শিল্প টিকিয়ে রাখতে সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীর নিকট একইহারে প্রণোদনা চেয়ে চিঠি দিয়েছে বিজিএমইএ এবং বিকেএমইএ সভাপতি। সম্পাদনা : রায়হান রাজীব

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত